৬, জুলাই, ২০২২, বুধবার

অনর্গল ইংরেজি বলছেন কাগজ কুড়ানো সেই বৃদ্ধা!

কাঁধে ঝুলছে মাঝারি সাইজের একটা বস্তা। জীর্ণ-শীর্ণ চেহারা। হাত-পায়ের আঙুলগুলো গেছে কুঁকড়ে। এমনই ষাটোর্ধ্ব এক কাগজ কুড়ানো বৃদ্ধার সাথে পথে দেখা। যিনি সুস্পষ্ট ইংরেজিতে কথা বলছেন অনর্গল। আর তার অজানা গল্প শুনে রীতিমত বিস্মিত নেটিজেনরা।

এ দৃশ্য ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের রাজধানী বেঙ্গালুরুর একটি রাস্তার। শচিনা হেগার নামের এক নারী ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। ভিডিওটি ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয়নি। ঠিক কী দেখা গেছে ওই ভিডিওতে?

এতে দেখা গেছে, বৃদ্ধার সঙ্গে কথা বলছেন ওই ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলের নারী। আর সেখানেই রয়েছে চমক। আসলে এই ধরণের পেশার সঙ্গে যুক্ত থাকা মানুষের প্রতি সবার যে ধারণা, তা যেন মুহূর্তে ছিন্ন হয়ে যায় তার চমৎকার ইংরেজি শুনে।

নিজের সম্পর্কে কথা বলার পাশাপাশি স্রষ্টার গুণগানও শোনা যায় ওই বৃদ্ধার মুখে। তার পুরো নাম সিসিলিয়া মার্গারেট লরেন্স।

কী করে একা একা কাটে তার দিনরাত? এ প্রশ্নের উত্তরে মার্গারেট মাতা মেরির একটি ছবি বের করে সেটি দেখিয়ে পালটা প্রশ্ন করেন, ‘আপনি আমাকে একা বলছেন?’

মার্গারেটের কথা থেকে জানা যায়, জাপানে দীর্ঘ ৭ বছর কাটিয়ে এসেছেন তিনি!

একসাথে দুটো ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করে শচিনা লেখেন, ‘গল্পগুলো আপনার চারপাশেই ছড়িয়ে রয়েছে, আপনাকে শুধু একটু থেমে নিজের চারপাশটা গভীরভাবে দেখে নিতে হবে। সুন্দর বা তিক্ত হতে পারে সেসব। কিন্তু এমন ফুলের মত সুন্দরও হতে পারে জীবন। এই চমৎকার মহিয়সী নারীর সাহচর্যে আপনি তা পেতে পারেন।’

বলাই বাহুল্য, আপলোড করা দুটি ভিডিওই ভাইরাল হতে সময় নেয়নি। সবাই বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। কেউ কেউ ঠিকানাও চেয়েছেন ওই নারীর।

রাস্তায় ঘুরে বেড়ানো একজন ভবঘুরে চেহারার মানুষের এমন বিস্ময়কর কথাবার্তা ও অতীতের সন্ধান যেন মনে করিয়ে দেয়, মলাট দেখে বইয়ের বিচার না করার সেই চিরন্তন প্রবচনকে। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন।

সর্বশেষ নিউজ