৪, আগস্ট, ২০২১, বুধবার

আটকে থাকা এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার ভবিষ্যৎ নির্ধারণ আজ

করোনা পরিস্থিতিতে চলতি বছরের আটকে থাকা এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে দুশ্চিন্তা এখনো কাটেনি শিক্ষার্থীদের। সংক্ষিপ্ত আকারে পরীক্ষা নাকি আবারো অটোপাস দেওয়া হবে, সে সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে আছে ২০২১ সালের এসএসসি ও এইচএসসির ৩৪ লাখ শিক্ষার্থী।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ভার্চুয়ালি সংবাদ সম্মেলনে আসছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এ সংবাদ সম্মেলনে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে ঘোষণা দেয়া হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও আন্তঃশিক্ষা বোর্ড মন্ত্রণালয়‌ সূত্রে জানা গেছে, এবার আর অটোপাস দেওয়া হচ্ছে না।‌ বিকল্প যেসব পদ্ধতি রয়েছে তার একটি হচ্ছে, রচনামূলক কিংবা সৃজনশীল অংশ বাদ দিয়ে কেবল এমসিকিউ পদ্ধতির পরীক্ষা নেওয়া। অন্যটি হলো বিষয় কমিয়ে পরীক্ষা নেওয়া। যেমন- দুটি বিষয় একীভূত করে একটি বিষয় করা। এ ক্ষেত্রে ২০০ নম্বরের বিষয়গুলো ১০০ নম্বরে পরীক্ষা নেওয়া।

এ দুটি বিষয় থেকে যেকোনো একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। কী বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, কীভাবে পরীক্ষা ও মূল্যায়ন হবে তার একটি রূপরেখা প্রকাশ করতে পারেন শিক্ষামন্ত্রী।

২০২১ সালের ঝুলে থাকা এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব না হলে বিকল্প পদ্ধতিতে পাস করানোর চিন্তাভাবনা করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এজন্য একাধিক প্রস্তাব তৈরি করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, রচনামূলক বা সৃজনশীল প্রশ্ন বাদ দিয়ে কেবল বহু নির্বাচনী প্রশ্নে (এমসিকিউ) পরীক্ষা নেওয়া। বিষয় ও পূর্ণমান (পরীক্ষার মোট নম্বর) কমিয়ে পরীক্ষা নেওয়া। এ ক্ষেত্রে প্রতি বিষয়ের দুই পত্র একীভূত করা।

একই সঙ্গে ২০০ নম্বরের বদলে ১০০ নম্বরে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তাবও রয়েছে। কিন্তু উভয়ক্ষেত্রেই করোনা পরিস্থিতির উন্নতি জরুরি। সংক্রমণের হার ১০ শতাংশের নিচে নেমে এলে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে পরীক্ষা নেওয়া হবে। স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে কেন্দ্রের সংখ্যা বর্তমানের তুলনায় দ্বিগুণ করে এ পরীক্ষা নেওয়া হবে।

সর্বশেষ নিউজ