২০, অক্টোবর, ২০২১, বুধবার

আমৃত্যু জনগনের পাশে থাকতে চাই সাংবাদিক নজরুল ইসলাম

এসএম বাচ্চু,তালা(সাতক্ষীরা)প্রতিনিধি: “দুঃখ আসুক সকল ভুবন আধার পেলেও সব সইতে হবে,আসুক বিপদ বর্জ্য সম মাথায় করে সব বইতে হবে,জয়পরাজয় সবার সাথে মিলেমিশে পথ চলতে হবে” দেশের খ্যাতিমান কবি সিকান্দার আবু জাফরের এই কবিতার সঙ্গে সুর মিলিয়ে নিজেকে উজাড় করে জনগণকে ভালবেসে যাওয়ার অভিমত ব্যক্ত করেছেন জাতীয় পার্টি তালা উপজেলা সভাপতি ও তালা সদরের সাবেক চেয়ারম্যান সাংবাদিক এসএম নজরুল ইসলাম।

গতকাল দুপুরে তালা উপজেলা সদরে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন তালা উপজেলা সভাপতি তালা সদরের সাবেক চেয়ারম্যান বর্তমান চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক এস,এম নজরুল ইসলাম ।
সাম্প্রতিক সরকার ঘোষিত এক আদেশে স্থানীয় সরকার নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। ইউপি নির্বাচনের তারিখ সরকার কবে ঘোষনা করবেন সেটা সরকারের ব্যাপার। তিনি বলেন জীবনের শুরু থেকে জনগনের সাথে আছি সারা জীবন আমৃত্যু জনগনের পাশে থাকবো ইনশাল্লাøহ। জনগন ক্ষমতার মূল উৎস, নির্বাচিত প্রতিনিধি জনগনের জানমালের নিরাপত্তায় এক নির্ভর যোগ্য আশ্রয়স্থল।

তিনি মনে করেন নির্বাচনের সময় প্রার্থীরা ভোটারদের খুঁজবেন নির্বাচন হয়েগেলে ভোটারদের ভুলে যাবেন এই নিতীকে তিনি সমর্থন করেন না।জনগনের ভালবাসা অর্জন করতে সকল সময় শুখে দুঃখে আপদে বিপদে জনগনের সাথে মিলে মিশে থাকতে চান এবং আছেন। বিগত দিনে তিনি চেয়ারম্যান থাকাকালীন, তালা সদর ইউনিয়ানের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ উন্নয়নের দাবীদার হিসেবে ইতিমধ্যে জনগণের মাধ্যমে খ্যাতি অর্জন করেছেন। সকাল থেকে শুরু করে গভীর রাত পর্যন্ত মানুষের পাশে থাকা, অসহায় মানুষের সহযোগিতা করা এই লোকটির নৈতিক দায়িত্ব হিসেবে নিজেকে কুরবানী করেছেন।

নজিরবিহীন দৃষ্টান্ত স্থাপন করে তালা সদরে ৮৬টি ব্রিজ কালভার্ট, অসংখ্য রাস্তাঘাট তৈরি করে, তিনি প্রমান করেছেন মন থাকলে যে মানুষের জন্য কিছু করা যায়। যার বাস্তবতার উদাহরণ হিসেবে তালা সদর ইউনিয়ানকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে ও জেলার শ্রেষ্ট চেয়াারম্যান হিসেবে বিবেচিত হয়েছিলেন। তালা উপজেলা শত বছরের জলাবদ্ধতা নিরসন যাহা বাংলাদেশের সূচনা লগ্ন থেকে শুরু করে এক অভিশপ্ত জীবন যাপন করতেন তালা উপজেলা সহ পার্শ্ববর্তী উপজেলা সমূহ। হাজারো ফসলি জমি থাকলেও বৃষ্টি না হতেই পানিতে ভেসে চলে যেত কৃষকের ফসল। অনাহারে জীবন যাপন করতে এক প্রকার বাধ্য থাকতেন কয়েক হাজার মানুষ।

এই উপজেলার মানুষ যখন অনাহারে-অর্ধাহারে বন্যায় প্লাবিত হতে হতে দিশাহারা, শোচনীয় অবস্থায় জীবন অতিবাহিত করছেন। ঠিক তখনই জনগণের মূল্যবান ভোটে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তালা সদরের ছিন্নভীন্ন,জীর্ণশীর্ন্ন এক ইউনিয়নের মানুষের জানমালের নিরাপত্তার দায়িত্ব প্রাপ্ত হন সাবেক এই চেয়ারম্যান। একদম শূন্য থেকে শুরু করে ইউনিয়ান টি নিজের পরিবার মনে করে, ইউনিয়ানের সকল জনগণকে তার পরিবারের সদস্য হিসাবে গ্রহণ করে সকল মানুষের বেঁচে থাকার শেষ অবলম্বন টিকিয়ে রাখার এক চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেন। তিনি বলেন সকল মানুষের সার্বিক সহযোগিতায় মহান রাব্বুল আল আলামীনের অশেষ মেহেরবানীতে বছর খানেকের মধ্যে মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে সক্ষম হন।

সাম্প্রতিক স্থগিত থাকা নির্বাচনে তার অবস্থান সম্পর্কে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, জয়-পরাজয় আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের হাতে। সারা জীবন মানুষের জন্য কাজ করেছি, এখনো করছি ভবিষ্যতেও করব। আমি মৃত্যুর আগ পর্যন্ত মানুষের পাশে থেকে মানবসেবা কে একটি মহৎ কাজ মনে করে আমি মানুষের পাশে থাকবো। এবার নির্বাচনে ইউনিয়ানের মানুষ একতাবদ্ধ হয়ে গেছে, সকল মানুষ তাদের অধিকার আদায়ে, উন্নয়ণ ও সুশাসন ফিরে আনতে ইতিহাসের সর্বশ্রেষ্ঠ ও সর্বাধিক ভোট আমাকে প্রদান করে বিজয়ী করবে বলে আমি ধারনা করি। আগামী নির্বাচনে আমি বিজয়ী হলে প্রতিটা ওর্য়াডকে প্রদর্শিত সরকার ব্যবস্থার মাধ্যমে সংশিষ্ট ওয়ার্ড এর উপর সেই ওয়ার্ডের সকল কার্যক্রম ক্ষমতা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জনগণের হাতে ক্ষমতায়ন করবো এবং তালা সদর ইউনিয়ন কে ডিজিটাল ইউনিয়ান গড়ে তুলবো করব।
সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে সাংবাদিক এসএম নজরুল ইসলাম বলেন, আগামী ইউপি নির্বাচনে জনগন আমাকে ভোট দিবে ইনশাআল্লাহ। আমি জনগনের জানমালের নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবো যতদিন বেছে থাকি ইনশাআল্লাহ।

সর্বশেষ নিউজ