১, ডিসেম্বর, ২০২১, বুধবার

এবার কেজি দরে বেল বিক্রি!

কেজি দরে তরমুজ বিক্রি হওয়ায় দেশজুরে তোলপার শুরু হয়েছিল। সেই রেশ কাটতে না কাটতে এবার পটুয়াখালীর বাউফলে বেল বিক্রি হচ্ছে কেজি দরে। স্বাস্থ্যকর এ ফলটি হঠাৎ কেজি দরে বিক্রি হতে দেখে ক্রেতারা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেছেন।

আজ সোমবার উপজেলার বাণিজ্যিক কেন্দ্র কালাইয়া বাজারে এ প্রতিনিধির সামনেই কেজি ওজনে বেল বিক্রি করতে দেখা গেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলার বড় বড় হাটবাজার গুলোতে কেজি ওজনেই বেল বিক্র হচ্ছে। দেখা গেছে, প্রতি কেজি বেল ১৬০ থেকে ১৮০ টাকায় (সাইজ ভেদে) বিক্র করা হচ্ছে। অথচ বাংলার উপকারী এই ফলটি গ্রামগঞ্জের হাটবাজারে সবসময়ই গোট বা পিস হিসেবেই বিক্রি হয়ে আসছিল। কালাইয়া বাজারের পল্লী চিকিৎসক সুভাষ চন্দ্র শীল জানান, বেল পেটের পিরার জন্য একটি উপকারী ফল। তিনি নিজেও দুটি বেল (এক কেজি) ১৬০ টাকায় কিনেছেন। বেল বিক্রেতা হানিফ জানান, ফল ব্যাবসায়ীরা যশোর থেকে কেজি হিসেবে বেল কিনে আনেন। তাই এখানেও কেজি হিসেবে বিক্রি করছি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার একাধিক পাইকারী ফলের আড়তদার জানান, গ্রামে যে পরিমাণ বেল পাওয়া যায়, তা দিয়ে এলাকার চাহিদা মেটানা সম্ভব নয়। তাই যশোর থেকে বেল পাইকারী কিনে এনে বিক্রি করতে হচ্ছে। তবে যশোর থেকে বেল কজি হিসেবে ক্রয় করা হয় কি না এমন প্রশ্ন এরিয়ে যান ব্যাবসায়ীরা।

এলাকার বয়োজেষ্ঠ্যরা জানান, তাদের জীবদ্দশায় কেজিতে বেল বিক্রির কথা শোনেন নি। তাদের কাছে এঘটনা আজব ব্যপার। বাউফলসহ দক্ষিণাঞ্চলে বাণিজ্যিকভাবে বেল ফলানো হয়না। তবে প্রায় বাড়িতেই দু’একটি বেল গাছের দেখা মেলে। একাধিক ব্যাক্তি জানান, বেপারীরা গ্রামে গিয়ে গাছের বেল ঠিকা হিসেবে কিনেন। এরপর আগুণের তাপ দিয়ে রঙিণ করে যশোরের বেল বলে বিক্রি করা হচ্ছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকির হোসেন বলেন, বিষয়টি জানা ছিলনা। বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এগুলো নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

সর্বশেষ নিউজ