২৭, অক্টোবর, ২০২১, বুধবার

কঠোর লকডাউনের খবরে ‘ঢাকা ছাড়ছে’ মানুষ

করোনা মহামারি মোকাবিলায় আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে সর্বাত্মক লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এ খবর প্রচারের পর রাজধানী ছেড়ে ঘরমুখী হচ্ছে কর্মজীবী মানুষ। সরকারি ঘোষিত চলমান বিধিনিষেধের কারণে ব্ন্ধ রয়েছে আন্ত জেলার সড়ক যোগাযোগ। শুধুমাত্র সিটি করপোরেশন এলাকায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত চলাচল করছে গণপরিবহন। এমনি পরিস্থিতিতে অনেকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ এড়িয়ে রাতেও চালাচ্ছে ঢাকার বাইরের দু-একটি বাস। এমন সুযোগই কাজে লাগাচ্ছে সাধারণ মানুষ।

এ দিকে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের প্রবেশদ্বার মুন্সগঞ্জের শিমুলিয়াঘাটে ঘরমুখো মানুষের ভিড় রয়েছে। রবিবার (১১ এপ্রিল) থেকে ঢাকামুখী যাত্রীদের উপস্থিতি বেশি থাকলেও দুপুরের পর থেকে দক্ষিণবঙ্গগামী মানুষের চাপ বাড়তে থাকে।

সরেজমিনে দেখা যায়, পদ্মার শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌ-রুটে লঞ্চ ও স্পিডবোট বন্ধ থাকায় যাত্রীরা ফেরিতে করে নদী পারাপার হচ্ছে। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অনেকে ট্রলারে পদ্মা পাড়ি দিচ্ছেন।

শিমুলিয়া ঘাট সূত্রে জানা গেছে, ঘাট এলাকায় তিন শতাধিক ব্যক্তিগত ও শতাধিক পণ্যবাহী যানবাহন অবস্থান করছে। এসব যাত্রী ও যানবাহন পারাপারে নৌরুটে বর্তমান ১৪টি ফেরি সচল রয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক প্রফুল্ল চৌহান জানান, সকালের দিকে ১৫টি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করা হচ্ছিল। তবে দুপুর ১২টার দিকে একটি ফেরি বিকল হয়। বর্তমানে এ রুটে ১৪টি ফেরি চলছে। তিনি বলেন, লকডাউনের আশঙ্কায় যাত্রীরা বাড়ি ফিরছেন। ফলে লঞ্চ ও স্পিডবোট বন্ধ থাকায় ফেরিতে যাত্রীদের চাপ রয়েছে।

সর্বশেষ নিউজ