২৩, সেপ্টেম্বর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

করোনা পরীক্ষা নিয়ে চীনের নয়া ফতোয়া

ধারণা করা হয়, চীনের উহানের একটি বাজার থেকে প্রথম করোনাভাইরাস ছড়িয়েছিল। কিন্তু চীন সে দাবি প্রত্যাখ্যান করে এখন নতুন দাবি নিয়ে হাজির হয়েছে। তারা বলছে, গত বছর বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় ভাইরাসটি ছড়িয়েছিল। তারাই প্রথম এ সম্পর্কে সবাইকে জানিয়েছে এবং এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে।

করোনা পরীক্ষা নিয়ে চীনের নয়া ফতোয়া। তৈরি হয়েছে বিতর্কের ঝড়। বিদেশ থেকে এলেই বিশেষ পদ্ধতিতে নমুনা সংগ্রহের নিয়ম চালু চীনের। বিদেশি নাগরিকদের জন্য পায়ুদ্বার থেকে নমুনা নিয়ে করোনা টেস্ট বাধ্যতামূলক করেছে চীনা প্রশাসন। টাইমস অফ ইন্ডিয়ার খবর অনুসারে, চীন জানিয়েছে মলদ্বার থেকে সংগ্রহ করা নমুনায় ভাইরাসের উপস্থিতি নির্ভুলভাবে বোঝা যায়।

ফলে চীনে আগত বিদেশিরা এবার প্রবল অস্বস্তিতে। চীনের এই করোনা বিধিতে প্রবল ক্ষুব্ধ পর্যটকেরা। এভাবে নমুনা সংগ্রহে শারীরিক অস্বস্তি ছাড়াও মারাত্মক ট্রমার সৃষ্টি হয়েছে।

করোনাকালে সমস্ত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরেই করোনা টেস্ট করা বাধ্যতামূলক। তবে নাক ও মুখ থেকেই লালারস সংগ্রহ করেই পরীক্ষা করা হত। তবে বেইজিং, সাংহাইয়ের মতো চীনের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পায়ুদ্বার থেকে নমুনা সংগ্রহ করে করোনা পরীক্ষা করাচ্ছে সে দেশের প্রশাসন।

এবার বিদেশি নাগরিকদের জন্য এই পদ্ধতিই বাধ্যতামূলক বলে ঘোষণা করল চীন। চীনের এই পদ্ধতি নিয়ে জাপান সহ বিভিন্ন দেশ ইতিমধ্যেই সরব। টেস্টের নামে অযথা বিদেশি নাগরিকদের হয়রান করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে জাপান। তবে চিকিৎসকের মতে, নাক বা গলার তুলনায় পায়ুতে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি আরও বেশিক্ষণ ধরে থাকে। ফলে করোনা পরীক্ষায় আরও বেশি নিঁখুত ফলাফল মেলার সম্ভাবনা।

সর্বশেষ নিউজ