১৭, সেপ্টেম্বর, ২০২১, শুক্রবার

কে এই ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন?

নায়িকা পরীমনিকে হত্যা ও ধর্ষণ চেষ্টার মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ। গত ১০ জনু রাতে ঢাকার আশুলিয়া বোট ক্লাবে নাসির উদ্দিন পরীমনিকে জোর করে মদ খাইয়ে হত্যা ও ধর্ষণের চেষ্টা চালান বলে অভিযোগ করেছেন পরীমনি। নাসির উদ্দিন ছাড়াও আরও ৪/৫ জন ওই ঘটনায় জড়িত ছিল বলে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন পরী।

তবে গ্রেফতারকৃত নাসিরের বিষয়ে বলতে গেলে তেমন কিছুই জানেন না সাধারণ মানুষ। এমন কি অনেকেই তার নামটিও এর আগে কখনো শোনেনি। তাই এ ঘটনার পর থেকে সবার মনেই একটি প্রশ্ন— কে এই ব্যবসায়ী নাসির?

নাসির উদ্দিন মাহমুদের পরিচয় তিনি একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর শেষ করেন। থাকতেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএম হলে।

রাজনীতি শুরু করে শিক্ষাজীবন থেকেই। ওই সময় তিনি এসএম হলের নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এরশাদের দলে যোগ দিয়ে রাজনীতি আরও পাকাপোক্ত করেন তিনি। হয়ে যান এরশাদ ঘেঁষা। এরপর তিনি জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য হন।

বর্তমানে তিনি কুঞ্জ ডেভেলপার্স নামে একটি কোম্পানির চেয়ারম্যান হিসেবে রয়েছেন। এর আগে তিনি বেশ কয়েকবার উত্তরা ক্লাবের প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন। এরপর গত ২০১৩/১৪ সালের দিকে ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য হন। ঢাকা বোট ক্লাবের একবার সভাপতিও ছিলেন তিনি। অবশ্য তিনি এই ক্লাবের প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্যও। সবশেষ তিনি গত ১০ জুন রাতে বোট ক্লাবের ভেতরে নায়িকা পরীমনিকে হত্যা ও ধর্ষণের চেষ্টা চালান। সেই অভিযোগে নাসির উদ্দিন মাহমুদকে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ সোমবার (১৪ জুন) উত্তরা থেকে গ্রেফতার করেছেন।

কেন এই বোট ক্লাব?

ঢাকায় অভিজাত সব ক্লাব থাকলেও হঠাৎ করে বোট ক্লাব করতে হলো কেন? কারা এই ক্লাবের সদস্য। ঢাকা সিটির বাইরে এই ক্লাবের কাজ কি? কেন নির্জন জায়গায় ওই ক্লাবটি করতে হলো?— এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজেছে সারাবাংলা।

জানা যায়, উত্তরা ক্লাবে যখন সদস্য সংখ্যা অনেক হয়ে যায়। জনসংখ্যার কারণে উত্তরা ক্লাবে নিরিবিলি পরিবেশ না পাওয়ায় নতুন একটি ক্লাব করার উদ্যোগ নেন নব্য ধনিক শ্রেণির ব্যবসায়ীরা। তারা উদ্যোগ নেন একটি বোট ক্লাব করার। সেই মোতাবেক উত্তরার কোল ঘেঁষে গড়ে ওঠা সাভারের বিরুলিয়া এলাকায় তুরাগ নদীর তীরে ক্লাবটি প্রতিষ্ঠা করার সিদ্ধান্ত নেন তারা। যেই উদ্যোগ সেই কাম। গড়ে ওঠে অভিজাত শ্রেণির নিরিবিলি এক ক্লাব ‘ঢাকা বোট ক্লাব’। পারটেক্স গ্রুপের রুবেল আজিজ এই ক্লাবের প্রতিষ্ঠাকালীন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য হওয়ার জন্য বেশ কয়েকটি ক্যাটাগড়ি রয়েছে। এরমধ্যে সবচেয়ে নিম্ন ক্যাটাগড়ির সদস্য হতে ১৫ লাখ টাকা দিতে হয়। অনারারি মেম্বার, স্থায়ী মেম্বার ও উপদেষ্টাদের আরও অনেক বেশি টাকা দিয়ে সদস্য হতে হয়।

এই ক্লাবে যারা নিয়মিত যাতায়াত করেন তাদের মধ্যে অন্যতম হলো নব্য ধনিক শ্রেণির লোকজন। একান্তে সময় কাটাতে সেখানে নানারকম ব্যবস্থা রয়েছে। বিশেষ করে শুক্রবার ঢাকার সব ক্লাব বন্ধ থাকলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকে বিশেষ এই ক্লাবটি। ক্লাবে শুধু মদই নয় বরং সেখানে ডিজে পার্টির নামে চলে নানারকম ফুর্তি-মাস্তি।

সর্বশেষ নিউজ