১৪, জুন, ২০২১, সোমবার

খুলছে না শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

করোনাভাইরাসের বিদ্যমান সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা খোলার তারিখ আবারও পিছিয়ে গেছে। ইতোপূর্বের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ২৩ মে এসব প্রতিষ্ঠান খোলার কথা থাকলেও আবার তা পেছানো হয়েছে।

সরকারের সর্বশেষ ঘোষণা ছিল, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবে ২৩ মে। আর বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে ২৪ মে।

কিন্তু করোনাভাইরাসের বিদ্যমান পরিস্থিতিতে মানুষের চলাচল ও সার্বিক কাজকর্মে চলমান বিধিনিষেধ আরও এক সপ্তাহ বাড়ানোর বাড়ানোর চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। এ অবস্থায় ঘোষিত সময়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে না।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, এখন পর্যন্ত নতুন কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। করোনা মোকাবিলায় গঠিত টেকনিক্যাল কমিটির সঙ্গে বসে সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ঈদের ছুটি শেষে হলে এ বিষযে এ্কটি সিদ্ধান্ত আসতে পারে জানান তিনি।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর সৈয়দ গোলাম মোহাম্মদ ফারুক বলেন, নতুন ভারতীয় ধরন ধরা পড়ার পর এ নিয়ে নতুন করে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। তাই আপাতত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষা কার্যক্রমে আরও গতিশীল করতে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জেলা পর্যাযের অনলাইন ক্লাসে উপজেলা শিক্ষার্থীদের সংযুক্ত করার জন্য বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ৫ শতাংশের নিচে না এলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়তো সম্ভব হবে না। সংক্রমণ কমতে থাকলে একটা সময সীমিত আকারে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার জন্য তৈরি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস পড়ানো শুরু করা যাবে।

এদিকে, আগামী ১৭ মে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খুলে দেওয়ার কথা থাকলেও সেখান থেকে সরে এসেছে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যরা বলছেন, ১৬ মে পর্যন্ত সরকারি বিধিনিষেধ রয়েছে। সেই বিধিনিষেধ আরও এক সপ্তাহ বাড়তে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে সরকার। এই অবস্থায় হল খুলে দেওয়ার অবস্থা নেই।

এছাড়াও দেশের সব শিক্ষক, কর্মচারী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ লাখ ৩০ হাজার আবাসিক শিক্ষার্থীর টিকা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। ফলে পূ্বনির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী ২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলছে না।

সর্বশেষ নিউজ