১৯, অক্টোবর, ২০২১, মঙ্গলবার

গৃহবধুকে আগুন দিয়ে পুড়ে হাসপাতলে নিয়ে গেলে শশুড়বাড়ির লোকজন

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে সুমি আক্তার(২২) নামের এক গৃহবধূর গায়ে কেরোসিন ডেলে আগুন দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে শশুর বাড়ি লোকজনের বিরুদ্ধে। আগুনে দগ্ধ ওই গৃহবধুকে আংশকাজনক অবস্থা
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা বার্ণ ইন্সটিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টার দিকে শ্রীনগর উপজেলার কোলাপাড়া ব্রাক্ষ্মণপাইকসা গ্রামে এঘটনা ঘটে। এদিকে আগুনে দগ্ধ সুমিকে স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা না দিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দিতে শশুর বাড়ির লোকজনই তাকে ঢাকায় নিয়ে যায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, দুইবছর পূর্বর ব্রাক্ষ্মণপাইকসা গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে আল-আমিনের সাথে মাধারীপুর জেলার শিবচরের মোঃ লৎফরের মেয়ে সুমির বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন সংসার ভালো চললেও বিগত কয়েকমাস যাবত যৌতুক সহ নানা কারণে সুমির উপর নির্যাতন করে আসছিলো স্বামী আলামিন, শশুর খালেক, শুশুড়ি। শনিবার সকালে আবারো যৌতুকে দাবিতে সুমির সাথে স্বামী আলামিনে বাকবিতন্ডা তৈরি হলে একপর্যায় আলামিন তার পিতামাতার সহযোগিতায় কেরোসিন ঢেলে সুমির গায়ে আগুন দেয়। এসময় সুমি দৌড়ে বাড়ির পাশের পুকুরে লাফিয়ে পড়লে তার আত্মচিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসে। পরে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে উপজেরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাকে না ভর্তি করে ঢাকায় নিয়ে যায় শশুরবাড়ির লোকজন।

এবিষয়ে আল-আমিনের সাথে যোগাযোগ করা হলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

এদিকে ঘটনাটি জানানজানি হলে দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(লৌহজং ও শ্রীনগর সার্কেল) আসাদুজ্জামান।

তিনি জানান, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। বিস্তারিত খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযোগ পেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সর্বশেষ নিউজ