২০, অক্টোবর, ২০২১, বুধবার

গোসাইরহাটে জমি সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ৩৫ জন

শরীয়তপুর প্রতিনিধি: গোসাইরহাটে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে আহত হয়েছে অন্তত পক্ষে ৩৫ জন। আহতদের গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ শুক্রবার দুপুরে জেলার গোসাইরহাট উপজেলার কোদালপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডেও মাল কান্দি গ্রামে। দু গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

থানায় এখন ও কোন মামলা হয়নি।
আহত শামসুল মিয়া, সিরাজুল মাল, গোসাইরহাট থানা ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, গোসাইরহাট উপজেলার কোদালপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি দাদন মাল ও একই এলাকার আলমাস মাল গ্রুপের মধ্যে জমি জমা নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে আজ শুক্রবার দুপুরে আলমাস মাল ও তার লোকজন দাদন মালকে বকাবকি করে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে উভয় গ্রুপ দেশীয় অস্ত্র সস্ত্র সজ্জিত হয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে পাল্টা-পাল্টি হামলা হয়।

দুই ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষে শামসুল মিয়া (২৭),নাসির মাল(৫৫),জোসনা বেগম (৪৮),রাসেল মিয়া (২৮), ফয়সাল মিয়া (২০), সেলিম মাল(৫০), গিয়াস উদ্দিন মাল (৭০), রাশেদা বেগম (৬০), ইমান মাল(৬৮), সাদিয়া বেগম(২২),মুরাদ মাল(৩৫), বাবুল মাল(২৮), সেলিনা বেগম (৩০), সিরাজুল ইসলাম মাল (৩০), তারা মিয়া সরদার (৩০), আলমাস মাল (৫০), রুবেল মাল (৩০), মুরশেদা বেগম (৪০), সজল মাল (৬০), সালমা বেগম (২৫), আতাউর রহমান (২২) সোবহান মাল(৪০)সহ অন্তত ৩৫ জন মারাত্নক আহত হয়েছে। গোসাইরহাট থানা পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে গোসাইর হাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করে। আহতদের মধ্যে গিয়াস উদ্দিন মাল, রাসেল মিয়া জোসনা বেগম ও নাসির মালকে আশংকাজনক অবস্থায় শরীয়তপুর সদও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দু গ্রুপের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

আহত বাবুল মাল বলেন, আলমাস মালের লোকজন অন্যায় ভাবে আমাদের প্রায় ৩৫ জনকে কুপিয়ে পিটিয়ে মারাত্ন আহত করেছে। আমরা এর বিচার চাই।
কোদালপুর ইউনিয়নের ১ নং ওয়াড আওয়ামীলীগের সভাপতি দাদন মাল বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে আলমাস মালের লোকজন দেশীয় অস্ত্র শস্ত্র্্র নিয়ে আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়।
আহত আলমাস মাল বলেন, তিন মাস পূর্বে আমার ছেলে সিরাজ মালের সংগে একই এলাকার বাবুল মালের সংগে জগড়া হয়। সে ঝড়গাকে কেন্দ্র করে দাদন মালের সমর্থক গিয়াস উদ্দিন মালের ছেলে বাবুল মাল লোকজন নিয়ে এসে আমার স্ত্রী মুরশেদা বেগমকে মারধর করে হাত ভেংগে দেয়। তখন আমি মামলা করি। তাতে তারা জেল খাটে। গত কাল জেল থেকে বের হয়ে আমাদের উপর হামলা করে।

গোসাইরহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও কোদালপুর ইউনিয়ন পুরুষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান সরদার বলেন, মাল কান্দি এলাকার আলমাস মাল ও দাদন মাল তারা এক অপরের চাচাতো ভাই। জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে আজ দুপুরে উভয় গ্রুপে সংঘর্ষ হয়। এতে গ্রুপে ২৫/৩০ জন মারাত্নক আহত হয়েছে।
গোসাইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা সোয়েব আলী বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে স্থানীয় আলমাস মাল ও দাদন মাল গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এত একটি গ্রুপের ১৫ জন ও অপর গ্রুপের ৪ জন আহত হয়েছে। এখনো থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে আসেনি।

সর্বশেষ নিউজ