২৮, অক্টোবর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

ঘুমন্ত অবস্থায় তানিশাকে কুপিয়ে হত্যা করে সৎ মা

খুলনার তেরখাদায় পাঁচ বছর বয়সী শিশু কণ্যাকে ঘুমন্ত অবস্থায় কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় আটক সৎ মা মুক্তা খাতুন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) দুপুরে খুলনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিট্রেট আলিফ রহমানের আদালতে সে এই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করে। পরে তাকে কড়া পুলিশ প্রহরায় খুলনা জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, গত (৫ এপ্রিল) রাত ১০টায় তেরখাদা উপ‌জেলার ছাগলাদাহ ইউ‌নিয়‌নের আড়কা‌ন্দী গ্রা‌মে তা‌নিশাকে (৫) তার সৎ মা মুক্তা খাতুন কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনার পর পর স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ মুক্তা খাতুনকে (২৪) গ্রেফতার করে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার ছাগলাদাহ ইউনিয়নের আড়কান্দী গ্রামের বাসিন্দা আনসার সদস্য খাজা শেখ এর সাথে প্রথম স্ত্রীর বিচ্ছেদের পর মুক্তা খাতুনকে দ্বিতীয় বিয়ে করে। এরপর থেকে প্রথম স্ত্রীর গর্ভজাত শিশু কণ্যা তানিশা খাজার বাড়িতে সৎ মা মুক্তার কাছে থাকতো।

এমতাবস্থায় ৫ এপ্রিল রাত ১০টার দিকে ঘরের দরজা বন্ধ করে মুক্তা খাতুন ধাঁরালো দা দিয়ে শিশু তানিশাকে এ লোপাপাথাড়িভাবে কোপাতে থাকে। এসময় তানিশার চিৎকারে তার চাচাসহ প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পায়। সাথে সোথে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

এদিকে তানিশাকে হত্যার পর মুক্তা খাতুন কৌশলে পালিয়ে যেতে গেলে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পরে মুক্তা খাতুনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের হয়। যার মামলা নং-৩, তারিখ ০৬/০৪/২১।

সর্বশেষ নিউজ