২৩, সেপ্টেম্বর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

চেতনানাশক ইনজেকশন পুশ করে রোগীদের ধর্ষণ করতো এই ডাক্তার

চে’তনানা’শক ইনজে’কশন পু’শ করে ধ’র্ষ’ণ। তুলে রাখা হতো ছবি। সিরিয়াল ধর্ষক চাঁদপুরের রসু খা, নারায়ণগঞ্জের

সিদ্ধিরগঞ্জের স্কুলশিক্ষক আরিফ কিংবা চট্টগ্রামের বহুল আলোচিত বেলাল দফাদারের ধ’র্ষ’ণের উৎসব থেকেও আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে গেছেন কুমিল্লার লাকসাম পৌর শহরের

জংশন এলাকায় র‌্যাবের হাতে আটক ডাক্তার না’মধারী সিরি’য়াল ধ’র্ষ’ক আলো’চিত মী’র হোসেন। ধ’র্ষ’ণে তার কৌ’শল ছিল ভিন্ন। বছরের পর বছর নিজের

মা’লিকানাধীন ডিজি’টাল হেলথ কেয়ারের প্যাথলজি ল্যা’বে কর্মরত নারী’কর্মী’দের ধ’র্ষ’ণ করে আসছিলেন তিনি। কখনও প্র’লোভ’নে, কখ’নও চাক’রি হারা’নোর

হু’ম’কি দিয়ে কিংবা কাউকে চেতনানাশক ইন’জেকশন পু’শ করে ধ’র্ষ’ণ করে আসছিলেন তিনি। ধ’র্ষ’ণের সময় গো’পন ক্যা’মেরায় ছবি তুলে মাসের পর মাস ছবি

প্রকা’শের হু’ম’কি দিয়ে চালিয়ে গেছেন যত অ’পক’র্ম। কিন্তু এবার ধরাশায়ী হয়েছেন ওই নারী’লোভী কথিত ডাক্তার। এক না’রীক’র্মী’র অ’ভিযোগের প্রে’ক্ষিতে বুধবার

তাকে আ’টক করেছে কুমি’ল্লার র‌্যাব ১১, সিপিসি-২ এর একটি দল। কথিত ওই ডা’ক্তার মীর হোসেন লাকসাম পৌরসভার বাইনচাটিয়া গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে।

ঠিক কতজন না’রীক’র্মী এ যাবত ধ’র্ষ’ণের শিকার হয়েছেন- এ বিষয়ে র‌্যাব নিশ্চিত হতে তাকে জি’জ্ঞা’সা’বাদ অ’ব্যাহত রেখেছে। বিষয়টি নি’শ্চিত করেছেন র‌্যাব-১১

এর কুমিল্লার সিপিসি-২ এর কোম্পানি কমা’ন্ডার সহ’কারী পুলিশ সুপার প্রণব কু’মার। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার লাকসাম থানায় মা’মলা হতে পারে। র‌্যাব, স্থা’নীয় সূত্র ও

ভু’ক্তভো’গীদের অ’ভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভু’য়া ডাক্তার মীর হোসেন তার প্যা’থলজিতে সু’ন্দরী মেয়েদের চাক’রি দিয়ে নানা কৌশলে তাদের ধ’র্ষ’ণ করতেন।

গোপনে ক্যামেরায় ছবি তুলে রেখে পরবর্তীতে হু’ম’কি দিয়ে তাদের এ’কা’ধিকবার ধ’র্ষ’ণ করতেন। কেউ ভ’য়ে মুখ খুলতে সাহস পেত না।

আরো পড়ুন

ফেসবুকে আইডি খোলার পর থেকে শুরু হয় তথ্য সংগ্রহ। আমরা ফেসবুকের কোন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করি, কোন ধরনের ইভেন্টে আমন্ত্রণ পাই, আমাদের বন্ধু তালিকায় কারা, ইনবক্সে কে কী লিখলো, আমরা কাদের ফলো করি, মেসেঞ্জারে কী নিয়ে বেশি কথা বলি, এসব তথ্য সংরক্ষণ করে রাখে ফেসবুক। জিপিএস সিস্টেম বন্ধ থাকলেও চলতে থাকে ট্র্যাকিং।

একবার মার্কিন সিনেটর জোশ হাওলি ও ক্রিস্টোফার এ কুনসের এক চিঠির জবাবে ফেসবুক জানায়, লোকেশন, বিজ্ঞাপন, ডেটা, নিউজ ফিড এবং সেফটি চেকসহ বিভিন্ন কাজের উদ্দেশ্যে জিপিএস ব্যবহার করা হয়। পরে ওই চিঠির কপি টুইটারে ফাঁস করে দেন জোশ হাওলি। দক্ষিণ কোরিয়ার সরকারও কদিন আগে ফেসবুককে ৬১ লাখ ডলার জরিমানা করেছিল।

অভিযোগ ছিল, ফেসবুক দেশটির ৩৩ লাখ নাগরিকের তথ্য তৃতীয় পক্ষের হাতে তুলে দিয়েছিল ‘বিশ্লেষণ’ করার জন্য। গুগলও সবসময় লক্ষ রাখে আপনি ইন্টারনেটে কী করছেন, কোন সাইটে ঢু মারছেন। এসবের ওপর ভিত্তি করে গুগল আপনার জন্য ‘প্রেডিক্টিভ অ্যানালাইটিকস’ এর সাহায্যে একটি কাস্টমাইজড সার্চ ডেটাবেজ তৈরি করে ফেলে। মানে আপনি কিছু লিখে সার্চ করলে গুগল আপনাকে যেভাবে চিনেছে সেভাবেই সার্চ রেজাল্ট দেখাবে।

এতে হয়তো দরকারি জিনিসটা আপনি নাও পেতে পারেন। তবে এ ট্র্যাকিংয়ে ফেসবুক এক কাঠি বেশি সরেস। মেসেঞ্জারের অডিও আলাপনেও আড়ি পাতে সে। মেসেঞ্জারে আমরা কী বলছি না বলছি সেটা বুঝে সেই অনুযায়ী বিজ্ঞাপন দেখানো শুরু করে। এ কাজে আমাদের ইনবক্সের এসএমএসও কপি করে নেয় ফেসবুক। এই সব কথোপকথন ও এসএমএসের মাধ্যমে ফেসবুক বুঝে নেয় কার ‘ইন্টারেস্ট’ কীসে। বিষয়টি জনসমক্ষে প্রায় আড়াই বছর আগেই।

২০১৮ সালের মার্চে ফেসবুক এ নিয়ে বলেছিল, তারা ব্যবহারকারীর উপকারের কথা ভেবেই নাকি এমনটা করে। আগামী বছর আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলো এমন খবরও জানায় যে, ফেসবুক আপনার মেসেঞ্জারের অডিও চ্যাটগুলোও নিজের মতো করে বিশ্লেষণ করে।

পরে অবশ্য আরও অনেক অন্যান্য এআই অ্যাসিস্ট্যান্ট-এর বিরুদ্ধেও এমন অভিযোগ ওঠে। অ‌্যামাজনের অ্যালেক্স, গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট, অ্যাপলের সিরি- কান পাতার অভ্যাস আছে এদেরও। আপাতত নিজের ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষিত রাখতে ফেসবুকের সেটিংসের একটি অপশনের সাহায্য নিতে পারেন।

সেখানে আছে ‘ইওর ফেসবুক ইনফরমেশন’। এই পেজে গেলে আমাদের সব ডাটা দেখা যায় এবং ডাউনলোড করা যায়। এখানে ক্যাটাগরি করে বিভিন্ন তথ্য দেওয়া আছে। যেমন- ফেসবুক পোস্ট, কমেন্ট, লাইক ইত্যাদিসহ আরও নানা তথ্য দেওয়া আছে। আমরা চাইলে এসব তথ্য ‘অফ’ রাখতে পারি। ফেসবুকের মতো গুগলেও এই তথ্যগুলো আছে। গুগলের সেটিংসে গিয়ে ডাটা অ্যান্ড পারসোনালাইজেশন অপশনে গেলে বিভিন্ন তথ্য দেখা যাবে। আপনার সার্চ, লোকেশন হিস্ট্রি-এসব ডাটা দেখা যাবে। এসবও চাইলে বন্ধ রাখা যায়।

সর্বশেষ নিউজ