২৮, অক্টোবর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

ছাত্রলীগে ভর করেছে হেফাজত!

উপমহাদেশের অন্যতম প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাসী ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাসের প্রতিটি পরতে পরতে জড়িয়ে আছে ছাত্রলীগের নাম। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন ছাত্রলীগ। গণতান্ত্রিক সংগ্রামের প্রতিটি বাঁকে ‘শিক্ষা, শান্তি, প্রগতি’র পতাকাবাহী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সুনাম রয়েছে, রয়েছে অনন্য ভূমিকা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে দেশে পৃথক কিছু ঘটনার মধ্য দিয়ে সংগঠনটিতে সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর ‘গোপন অবস্থান’ স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। এমনকি ছাত্রলীগ নামধারী সেইসব নেতারা হেফাজতে ইসলামের মতো মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীকে প্রকাশ্যে সমর্থন দিচ্ছে। ছাত্রলীগের কাঁধে ভর করে সাম্প্রদায়িক মতাদর্শে বিশ্বাসী এসব অনুপ্রবেশকারীদের নানা অপপ্রচারেও লিপ্ত হচ্ছে। হেফাজতে ইসলামের মত সাম্প্রদায়িক সংগঠনের চিন্তা-চেতনা, আদর্শ লালনকারীদের দেখা মিলেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগে। ছাত্রলীগের বিভিন্ন শাখা কমিটিতে জায়গায় করে নেয়া হেফাজতপন্থিদের স্বরূপ উন্মোচনও হচ্ছে ধীরে ধীরে। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারীরা হেফাজতের পক্ষে সাফাই গাইতে দেখা যাচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে হেফাজতে ইসলামের কর্মকাণ্ডের পক্ষে স্ট্যাটাস দিয়েছে ছাত্রলীগের বিভিন্ন পযার্য়ের নেতাকর্মীরা। অনেকে আবার হেফাজতে ইসলামের জন্য ছেড়েছেন ছাত্রলীগের পদ-পদবীও। আবার কাউকে কাউকে হেফাজতে ইসলামের পক্ষে স্ট্যাটাস দেয়ার অপরাধে বহিষ্কারও করেছে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

গত ৩০ মার্চ হেফাজতে ইসলামের আন্দোলনে সমর্থন জানিয়ে ছাত্রলীগ থেকে পদত্যাগ করেন সিলেটের জকিগঞ্জ পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ড সভাপতি হাফিজ মাজিদ। এর একদিন আগে ২৯ মার্চ হেফাজতে ইসলামের পক্ষে সমর্থন জানিয়ে হবিগঞ্জের থেকে পদত্যাগ করেন ছাত্রলীগের তিনজন নেতা। এরা হলেন, হবিগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক হেলাল উদ্দিন জনি, হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ১০নং লস্করপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক মহসিন আহমেদ মুন্না ও হবিগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম।

এদিকে হেফাজতে ইসলামের বিতর্কিত নেতা মাওলানা মামুনুল হকের পক্ষে ফেসবুক স্ট্যাটাস দিয়ে বহিষ্কার হয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ উদ্দিন ও ফয়েজ মারজানকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। মানুনুল হকের পক্ষে স্ট্যাটাস দিয়ে বহিষ্কার হয়েছেন চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ৮ নং সোনাইছড়ি ইউনিয়নে ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ।

ছাত্রলীগে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি সমর্থকদের বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ আরিফ হোসেন ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘যখনই দেশে থেকে কোনো সংকট দেখা দেয় তখনই ছাত্রলীগের মধ্যে কারাকারা মওদুদী মতবাদে বিশ্বাস করে তাদের চরিত্র বের হয়ে আসে। ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারী নাই, সেটা অস্বীকার করার সুযোগ নেই। বিভিন্ন সময় ছাত্রলীগে ঘটেছে। হেফাজতে ইসলামের মত মৌলবাদীরা দাঙ্গা-হাঙ্গামা চালাচ্ছে, এখন অনুপ্রবেশকারীদের আসল চরিত্র বের হয়ে আসছে। আমাদের উচিত এদের চিহ্নত করে আজীবনের জন্য সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা।’

ছাত্রলীগে হেফাজতে ইসলামের সমর্থকের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের আরেক সহ-সভাপতি মাজহার শামীম ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘লাখ লাখ নেতাকর্মীর সংগঠন হচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সেখানে কিছু নেতাকর্মী ধর্মনিরপেক্ষার রাজনীতি বা ছাত্রলীগের মূলনীতি সম্পর্কে হয়তো তাদের পরিষ্কার কোনো ধারণা নেই। অথবা তারা সংগঠনকে ধারণ করতে পারেনি, অনুপ্রবেশ করেছে ছাত্রলীগে। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ধর্মান্ধতা ও সাম্প্রদায়িকতায় বিশ্বাস করে না। ছাত্রলীগের যেসব সদস্য ধর্মান্ধতা বা সাম্প্রদায়িকতার চিন্তা করবে, বুঝতে হবে তারা প্রকৃতপক্ষে ছাত্রলীগের সদস্য নয়। তাদের নিজেদের পদত্যাগ করাই ভালো। অন্যথায় আমরা সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেবো।’

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ চৌধুরী ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘যারা হেফাজতে ইসলামের মত একটি সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কাছে মাথা নত করতে পারে, ছাত্রলীগকে বিতর্কিত করতে পারে, এরাই ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকারী। এরা কখনোই জাতির পিতার আদর্শের সৈনিক নয়, শেখ হাসিনার কর্মী নয়। এরা বরাবরই অনুপ্রবেশকারী। যতদিন জেলা-উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে সাংগঠনিক মতামত বা সাংগঠনিক প্রক্রিয়া উপেক্ষা করে কমিটি হবে, সেখানে অনুপ্রবেশ ঘটবে- এটাই স্বাভাবিক।’

তিনি বলেন, ‘শুধু ছাত্রলীগ নয়, অনুপ্রবেশ ঘটেছে আওয়ামী লীগেও। আওয়ামী লীগ দীর্ঘদিন ক্ষমতায় থাকার কারণে বিএনপি-জামাত ও হেফাজতীরা আওয়ামী লীগে জায়গায় করে নিয়েছে। হেফাজত নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ায় কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উপ–আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক আফজাল খানকে হেনস্থা করেছে সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম আলম ও তার ছেলে। আবুল হাশেম আলমের ছেলে শিবিরের ক্যাডার হেফাজতের মদদপুষ্ট। আবুল হাশেম আলমরা হচ্ছে আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী। আমরা যদি জয়শ্রী ইউনিয়নে ছাত্রলীগের কমিটি সম্মেলন ছাড়া সুপারিশের ভিত্তিতে করি সেটা কি আওয়ামী লীগের পরিবারের হবে; নাকি জামাত-বিএনপি, হেফাজত ঘরোনা হবে? সম্মেলন ছাড়া সুপারিশের ভিত্তিতে রাতের আঁধারে প্রেস রিলিসের ভিত্তিতে কমিটি দিলে জামাত-বিএনপি ও হেফাজতপন্থিরাই ছাত্রলীগে পদ-পদবী পাবে। প্রেস রিলিস ভিত্তিক কমিটি গঠন থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে।’

এ ছাত্রলীগ নেতা আরও বলেন, ‘আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনকে ধন্যবাদ জানাই, তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের উপ–আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক আফজাল খানের পাশে দাঁড়িয়েছেন।’

ছাত্রলীগের আরেকজন যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব খান ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘দীর্ঘদিন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকায় কারণে জামাত-বিএনপির পরিবারের সন্তানরা সুবিধা নেয়ার জন্য ছাত্রলীগে আসছিলো। ওই শ্রেণির চরিত্র উন্মোচন হয়েছে। মূলত এরা ছাত্রলীগের কেউ নয়। বিগত সময়ে অনেকে এজেন্ডা বাস্তবায়ন করার জন্য ছাত্রলীগে এসেছে। কেউ ব্যক্তি এজেন্ডা কেউবা রাজনৈতিক সংগঠনের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে এসেছে। অনেকে নিজস্ব বলয় বৃদ্ধি করার জন্য তাদের বিভিন্ন পদে পদায়ন করেছে। যাদের নীতি আদর্শের সমস্যা রয়েছে, তারাই এদের লালন-পালন করেছে, আশ্রয় দিয়েছে। যারা প্রকৃতপক্ষেই ছাত্রলীগের রাজনীতি করে তারা বঙ্গবন্ধু আদর্শ নীতি, চেতনা নিয়ে দেশরত্ন শেখ হাসিনার কর্মী হয়ে রাজনীতি করে। তাদেরকে কোনও টাকা দিয়ে কেনা যায় না। তাদের কোনও প্রলোভন দিয়ে ভিন্ন পথে প্রভাবিত করা যায় না। তারা সব সময় ন্যায়ের পথে, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পথে, স্বাধীনতার চেতনার পথে, দেশরত্ন শেখ হাসিনার কর্মী হয়ে কাজ করে। জন্মলগ্ন থেকে শুরু প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রাম কিংবা দেশের যে কোনও সংকটে সব সময় সাধারণ মানুষ পাশে থেকে কাজ করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।’

মাহবুব খান আরও বলেন, ‘মৌলবাদী চক্র, যারা পাকিস্তানি এজেন্ডা বাস্তবায়ন করে, যারা ধর্মের নামে ব্যবসা করছে, ইসলামের লেবাস ব্যবহার করে ইসলামবিরোধী কাজ করছে, তারা আল্লাহর শত্রু, নবী রাসূলের শত্রু। তেমনি তারা দেশের শত্রু ও সাধারণ মানুষের শত্রু। মৌলবাদীদের পরিবার, আত্মীয়-স্বজন, সন্তানরা সুবিধা নেয়ার জন্য অতিথি পাখি হয়ে ছাত্রলীগে এসেছিলো, তাদের মুখোশ এখন উন্মোচিত হচ্ছে।’

সর্বশেষ নিউজ