২৮, ফেব্রুয়ারি, ২০২১, রোববার

টিকতে পারলেন না তামিম, সিংহাসন পুনরুদ্ধার মুশফিকের

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ব্যাট হাতে নেমেই মুশফিকুর রহিমকে টপকে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির পর টেস্ট ক্রিকেটেও সর্বোচ্চ রানের মালিক হয়েছিলেন তামিম ইকবাল। তবে সেই রেকর্ডে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনি। নিজের হারানো সিংহাসন পুনরুদ্ধার করেছেন মুশফিক।

মুশফিকুর রহিমের চেয়ে মাত্র ৮ রান পিছিয়ে থেকে ক্যারিবিয়নদের বিপক্ষে ব্যাট হাতে মাঠে নামেন তামিম। দুই বাউন্ডারি ও এক সিঙ্গেলে মুশফিককে টপকে যান তামিম। তবে নিজের স্থান আরও পোক্ত করতে পারেননি তিনি। ৯ রান করেই বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরেন তামিম। ফলে মুশফিকের চেয়ে মাত্র এ রান এগিয়ে ছিলেন তিনি।

ফলে তামিম আউট হওয়ার সময় টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকাটি দাঁড়ায় তামিম ৪৪১৪ রান এবং মুশফিক ৪৪১৩ রান। মাত্র ১ রানে এগিয়ে থেকে আউট হন তামিম। তাকে টপকে যেতে মাত্র দেড় থেকে দুই ঘণ্টা সময় নিলেন মুশফিক। তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে অধিনায়ক মুমিনুল হকের বিদায়ের পর উইকেটে গিয়ে মাত্র ৬ বলের মধ্যেই নিজের শীর্ষস্থানটি পুনরুদ্ধার করেন মুশফিক।

ইনিংসের ৫১তম ওভারে মুমিনুল ২৬ রান করে ফিরলে ব্যাটিংয়ে আসেন মুশফিক। মুখোমুখি দ্বিতীয় বলে রানের খাতা খোলেন তিনি, যা তাকে বসায় তামিমের সমান্তরালে। পরে ষষ্ঠ বলে স্ট্রেইট ড্রাইভে এক রান নিয়ে তামিমকে ছাড়িয়ে আবারও সিংহাসনে বসেন মুশফিক। বাংলাদেশের পক্ষে টেস্টে ৪ হাজার রান করা ব্যাটসম্যান এ দুজনই। তিন নম্বরে থাকা সাকিব আল হাসানের নামের পাশে রয়েছে ৩৮৬২ রান।

গত ২০১৮ সালের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে নিজের ৫৫তম ম্যাচে ৪ হাজার রানের মাইলফলক পূরণ করেছিলেন তামিম। একইবছরের নভেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠে নিজের ৬৬তম টেস্টে ৪ হাজারের ক্লাবে প্রবেশ করেন মুশফিক। এরপর আজকের আউটসহ ১০ ইনিংসে তামিম করেছেন মোট ৪১২ রান। অন্যদিকে ৪ হাজারি ক্লাবের পর অষ্টম ইনিংসে ব্যাট করতে নামা মুশফিকের সংগ্রহ ৪১০ রান।

বিশ্ব ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় অবশ্য অনেক পিছিয়ে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। এখন পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেটে অন্তত ৪ হাজার রান করেছেন ১৩৬ জন ব্যাটসম্যান। এদের মধ্যে মুশফিক রয়েছেন ১১৬ নম্বরে। তার পরেই রয়েছে তামিম ইকবালের নাম।

টেস্টে সর্বোচ্চ রান করা পাঁচ বাংলাদেশি
১/ মুশফিকুর রহীম – ৪৪১৬* রান, সেঞ্চুরি ৭, সর্বোচ্চ ২১৯*
২/ তামিম ইকবাল – ৪৪১৪ রান, সেঞ্চুরি ৯, সর্বোচ্চ ২০৬
৩/ সাকিব আল হাসান – ৩৮৬২ রান, সেঞ্চুরি ৫, সর্বোচ্চ ২১৭
৪/ হাবিবুল বাশার – ৩০২৬ রান, সেঞ্চুরি ৩, সর্বোচ্চ ১১৩
৫/ মমিনুল হক – ২৮৬০ রান, সেঞ্চুরি ৯০, সর্বোচ্চ ১৮১।

সর্বশেষ নিউজ