১৩, জুন, ২০২১, রোববার

টিকা নিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব, তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় যা বললেন

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুর ইসলাম করোনাভাইরাসের টিকা নিয়েছেন। তাকে টিকা দেওয়ার মধ্য দিয়ে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে করোনার টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়।

রবিবার সকাল ১০টার দিকে ইনস্টিটিউটের তৃতীয় তলায় স্থাপিত টিকাদান বুথে প্রথম টিকা নেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস রোধে সারা দেশে আজ একযোগে টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। ১০০৫ কেন্দ্রে এ প্রতিষেধক দেওয়া হচ্ছে। আজ সকাল ১০টা মহাখালী স্বাস্থ্য ভবনে ভার্চুয়ালি টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

টিকা নেওয়ার পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুর ইসলাম প্রটোকল অনুযায়ী সবাইকে টিকা নেওয়ার অনুরোধ জানান।

তিনি বলেন, আমি খোঁজ নিয়ে দেখেছি, এই টিকার কোনো সমস্যা নেই। টিকা নেওয়ার পর আমার কোনো অসুবিধা হয়নি। আমার সঙ্গে অন্য যারা টিকা নিয়েছেন, তাদেরও কোনো অসুবিধা হয়নি।

খন্দকার আনোয়ারুর ইসলামের পর স্থানীয় সরকার বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, অর্থ বিভাগের সচিব আবদুর রউফ তালুকদার ও ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম টিকা নেন। তাদের পরে অন্যদের টিকা দেওয়া হচ্ছে।

আজ এই ইনস্টিটিউটে ৯০ জনের মতো ব্যক্তির টিকা নেওয়ার কথা রয়েছে বলে জানিয়েছেন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম।

রাজধানী ঢাকায় ৫০টি হাসপাতালে ২০৪ টিম এবং ঢাকার বাইরে সারা দেশে ৯৫৫টি হাসপাতালে ২১৯৬টি টিম টিকা প্রয়োগে যুক্ত রয়েছে আজ।

এর আগে ২৭ জানুয়ারি একজন নার্স টিকা গ্রহণের মধ্য দিয়ে প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু হয়। ওই দিন আরও ২৫ জন টিকা নেন। পরদিন রাজধানীর ৫টি হাসপাতালে আরও ৫৪১ জনকে দেওয়া হয়।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বোঝার জন্য এদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। খুব একটা সমস্যা না হওয়ায় ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে একযোগে টিকা প্রয়োগ শুরুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সর্বশেষ নিউজ