৬, জুলাই, ২০২২, বুধবার

দিনাজপুরে মুক্তিপনের টাকা আনতে গিয়ে ১ জন এএসপি সহ ৩ পুলিশ সদস্য জনতার হাতে আটক

দিনাজপুর প্রতিনিধি ঃ দিনাজপুরে চিরিরবন্দর উপজেলায় গতকাল মঙ্গলবার পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) রংপুরের ৩ সদস্যকে আটক করে থানায় সপর্দ করেছে জনতা। তারা উপজেলার নান্দেড়াই গ্রামে মা ছেলেকে অপহরন করে মুক্তিপন দাবী করেছিল। আটক ৩ পুলিশ সদস্যরা হলেন রংপুর সিআইডির এএসপি মোঃ সারোয়ার কবির, সহকারী উপ-পরিদর্শক এএসআই মোঃ হাসিনুর রহমান ও কনস্টেবল আহসানুল হক।

জানা যায় চিরিরবন্দর উপজেলার নান্দেড়াই গ্রামের সোলেমান শাহা পাড়ার লুৎফর রহমানের স্ত্রী জহুরা বেগম ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম। মা ও ছেলের নিকট আত্মীয় সামশুল আলম মানিক জানান গত সোমবার রাত ১০ টার দিকে সিআইডি সদস্য পরিচয়ে লুৎফর রহমান কে আটক করতে আসেন কয়েকজন। পরে লুৎফর রহমানকে বাসায় না পেয়ে তার স্ত্রী জহুরা বেগম ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর আলমকে আটক করে নিয়ে যায়। এ সময় জাহাঙ্গীরের মটরসাইকেলটিও নিয়ে যান তারা।

গতকাল মঙ্গলবার মা ছেলেকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য জাহাঙ্গীরের ফোন থেকে তার পরিবারের সদস্যদের কাছে প্রথমে ৫০ লাখ টাকা চাওয়া হয় পরে ২০ লাখ সর্বশেষ ৮ লাখ টাকা দাবী করা হয়। জাহাঙ্গীরের পরিবারের লোকজন বিষয়টি চিরিরবন্দর থানায় জানান। দাবীকৃত টাকা নিয়ে জাহাঙ্গীরের স্বজন ও চিরিরবন্দর থানার পুলিশ সদস্য তাজুল ইসলাম সহ কয়েকজন অপহরণকারীদের ঠিকানা অনুযায়ী রানীরবন্দর এলাকায় যান। সেখানে প্রায় ১ ঘন্টা থাকার পর আবার ফোনে বলা হয় কাহারোল উপজেলার ১০ মাইল এলাকায় তেলের পাম্পের কাছে যেতে এভাবে কয়েকবার জায়গা বদল করে হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন বাঁশের হাট এলাকার আম বাগানে যেতে বলেন সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে।

স্থানীয় লোকজন ও পুলিশের সহযোগিতায় তখন সিআইডি সদস্যদের ধরে ফেলে চিরিরবন্দর থানা পুলিশের কাছে সপর্দ করা হয়। বর্তমানে ৩ পুলিশ সদস্য দিনাজপুর পুলিশ সুপারের হেফাজতে আছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে চিরিরবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি সুব্রত কুমার সরকার জানান আটককৃতদের দিনাজপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন রংপুর সিআইডির ভারপ্রাপ্ত এসপি আতোয়ার রহমান।

সর্বশেষ নিউজ