২১, অক্টোবর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

দিনাজপুরে সন্ত্রাসীদের অতর্কিত ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মুসা মত্যুর প্রহর গুনছে

মোঃআব্দুস সাত্তার , দিনাজপুর প্রতিনিধি ঃ দিনাজপুর সদরের রানীগঞ্জ এলাকা মাদকের মামলাকে কেন্দ্র করে মুখোশধারী সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মুসা নামের এক যুবক এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মত্যুর প্রহর গুনছে।

জানা গেছে দিনাজপুর সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় মাদক সম্রাজ্ঞী পারভীন ও তার জামাই বীরদর্পে গাজা ও ইয়াবা পাইকারী এবং খুচরা দরে দীর্ঘদিন যাবৎ বিক্রি করে আসছে। মাদক ব্যবসা চালানোর সুবিধার্থে মাদক সম্রাজ্ঞীর রয়েছে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। উক্ত মাদক ব্যবসা বন্ধের জন্য রানীগঞ্জ বাজারসহ আশপাশের এলাকার শান্তি প্রিয় লোকজন পারভীন ও তার জামাইকে মাদক ব্যবসা বন্ধের জন্য চাপ সষ্টি করে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ৩ মে রাতে মাদক ব্যবসায়ীদের সন্ত্রাসী বাহিনী রাজু, আফজাল, সুজনসহ ৪ জনকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে বেদম প্রহার করে মোবাইল ও টাকা-পয়সা ছিনিয়ে নেয়।

এই ঘটনায় রাজুর পিতা নুর ইসলাম বাদী হয়ে কোতয়ালী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। উক্ত অভিযোগ তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পায় গত ১২ মে কোতয়ালী থানার এসআই মোঃ শাহীন শাহিদ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে রানীগঞ্জ বাজার এলাকার বাসা থেকে পারভীন ও তার জামাই ইউনুসকে গ্রেফতারের পর পুলিশ স্কটের মাধ্যমে আদালতে প্রেরণ করেন। যার মামলা নং-২৬, তাং-১২/৫/২০২১। তারা আদালত থেকে পরদিন ১৩ মে জামিন মুক্তি পেয়ে মুসা নামের এক যুবককে মুঠোফোনে রানীগঞ্জ বাজারে ডেকে নেয়। মুসা রানীগঞ্জ মোড়ে রাত ৯টার পর আসলে মাদক সম্রাজ্ঞী পারভীনর লালিত মুখোশধারী ওৎপেতে সন্ত্রাসীরা দেশীয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এতে মুসার সর্বশরীর এলোপাথারীভাবে রক্তাক্ত জখম হয়। এলাকাবাসী মুসাকে মুমুর্ষ অবস্তায় উদ্ধার করে দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। বর্তমান মুসা হাসপাতালে মত্যুর প্রহর গুনছে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুুতি চলছে বলে এলাকাবাসী সূত্র জানা গেছে । উলেখ্য যে মাদক সম্রাজ্ঞী পারভীন ও তার জামাইয়ের বিরুদ্ধে পূর্বের ১৫টি মাদক মামলা চলমান রয়েছে।

সর্বশেষ নিউজ