২০, মে, ২০২২, শুক্রবার

নবাবগঞ্জে চটের ঘরে বাস করে অসহায় রাজিয়া বেগম

নবাবগঞ্জ(দিনাজপুর)থেকে সৈয়দ হারুনুর রশীদ: দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার বিনোদনগর খিয়ার পাড়া গ্রামের মৃত জফুর উদ্দীনের স্বামী পরিত্যাক্তা মেয়ে রাজিয়া বেগম(৫০) বাস করে ইউরিয় সারের বস্তার চটের ঘেরা ঘরে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ইউরিয়া সারের বস্তার চট দিয়ে ঘেরা ছোট একটি ঘর। উপরে বিছানো রয়েছে টিন। ঘরের সামনে নর্দমা ভরা একটি ছোট খাল।

রাজিয়া জানান তিনি প্রায় ৩০ বছর ধরে স্বামী পরিত্যাক্তা। তার একটি মেয়ে রয়েছে । আমেনা বেগম নামে ওই মেয়েটির বিয়েও দিয়েছেন। তার সংসারে পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ৩ শতাংশ জায়গা ছাড়া আর কিছু নাই। তিনি ঢাকায় থেকে কাজ করে টাকা যোগাড় করে মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। ঢাকায় কাজ করার সময় সেখানকার ঠিকানায় তার জাতীয় পরিচয় পত্র তৈরী হয়। বর্তমানে সেটি স্থানান্তরের জন্য আবেদন করা রয়েছে।

নিজ বাড়ীতে ফিরে বিভিন্ন বাড়ীতে ঝিয়ের কাজ করে তার দিন চলে। কিছুদিন নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাসাতেও ঝিয়ের কাজ করেছেন। তার আক্ষেপ তার কপালে কোন সরকারী সুবিধা জোটেনি। তার আকাংখা স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিব শতবর্ষে একটি সরকারী বাড়ী পাওয়ার। এজন্য তিনি সরকারী কর্মকর্তা সহ জন প্রতিনিধিদের দৃষ্টি কামনা করেছেন। এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউ,পি সদস্য রেজাউল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি জানান রাজিয়া সরকারী সুবিধা পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু তার জাতীয় পরিচয় পত্রটি ঢাকার হওয়ার কারনে তাকে সরকারী ভাবে কোন সহায়তা করা যাচ্ছে না।

নবাবগঞ্জে হরতালের কোন প্রভাব পড়েনি নবাবগঞ্জ(দিনাজপুর) থেকে সৈয়দ হারুনুর রশীদ। দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে হেফাজতের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালের কোন প্রভাব পড়েনি। সকল ধরনের যানবাহন চলাচল ছিল স্বাভাবিক। সব অফিস ছিল খোলা। সব কিছুই স্বাভাবিক।

সর্বশেষ নিউজ