৫, জুলাই, ২০২২, মঙ্গলবার

নরসিংদীতে আড়িয়াল খাঁয় বাঁশের সাঁকো লাখ লাখ মানুষের দুর্ভোগ

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার আড়িয়াল খাঁ নদে সেতু না থাকায় দুই উপজেলার লাখ লাখ মানুষ চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। মাত্র একটি সেতুর অভাবে বাঁশের সাঁকো দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছেন দুই উপজেলার মানুষ। নদীর পূর্ব প্রান্তে রায়পুরা উপজেলার ২৪ ইউনিয়নের আদিয়াবাদ ইউনিয়নের রাধাগঞ্জ বাজার এবং পশ্চিম প্রান্তে একই ইউনিয়নের সিরাজনগর উম্মুল কুরা ফাজিল (ডিগ্রি) মাদরাসা ও সিরাজনগর বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয় এবং শিবপুর উপজেলা। প্রতিদিন রায়পুরা ও শিবপুর উপজেলার প্রায় ২০ গ্রামের মানুষের চলাচল এ বাঁশের সাঁকোতে। অথচ একটি সেতু থাকলে এই দুর্ভোগের লাঘব ঘটত। সেতুটি না থাকায় স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নদী পারাপার হচ্ছে।

একটি সেতু অভাবে আড়িয়াল খাঁ নদের দুই পাড়ের হাজার হাজার মানুষের নিত্যদিনের দুর্ভোগ শেষ হচ্ছে না। শত বছরের ঐতিহ্যবাহী রাধাগঞ্জ বাজারটি নদীর ওই পাড়ে হওয়ায় এ পাড়ের মানুষের যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম এই বাঁশের সাঁকো। প্রতিনিয়তই গ্রামের কৃষক, ব্যবসায়ীরা মালামাল মাথায় নিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকো পারাপার হন। দেশ আড়িয়াল খাঁ নদের ওপর সেতু না থাকায় রায়পুরার আদিয়াবাদ এবং পাশের শিবপুরের যোশর ও বাঘাব ইউনিয়নের নয়াচর, সৈকারচর, যোশর, মাখাল্লা, কামালপুর, জানখারটেক, লেটাব, দক্ষিণ কামালপুর, কাজিয়ারা, শ্রীরামপুরসহ ২০ গ্রামের মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শুকনো মৌসুমে তাদের বাঁশের সাঁকো পেরিয়ে রাধাগঞ্জ বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করতে হয়। বর্ষায় নদে পানি বেড়ে গেলে ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়। তখন পারাপার হতে হয় ছোট নৌকায়। দীর্ঘ দিন ধরে স্থানীয়রা এ নদের ওপর একটি সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়ে এলে জনপ্রতিনিধিরা কোনো উদ্যোগ নেননি। সম্প্রতি সাবেক মন্ত্রী স্থানীয় সংসদ সদস্য রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু সেতু নির্মাণের আশ্বাস দিলেও তা বাস্তবায়ন হচ্ছে না।

আদিয়াবাদ ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ইফতেখার হোসেন রাসেল বলেন, আড়িয়াল খাঁ নদের ওপর একটি ব্রিজ নির্মাণ করার জন্য এলাকাবাসী দীর্ঘ দিন দাবি জানিয়ে আসছেন। অথচ তা বাস্তবায়ন না হওয়ায় মানুষ এখন হতাশ।
নয়াচর গ্রামের বাসিন্দা শিক্ষাবিদ অছিউদ্দীন আহমেদ বলেন, সাঁকো ও ছোট নৌকায় করে শিশুদেরও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যেতে হয়। এতে আমাদের দুশ্চিন্তার শেষ নেই। স্থানীয় সংসদ সদস্য সেতুটি হবে বলে এলাকাবাসীকে আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু এখনো বাস্তবায়ন হচ্ছে না। নয়াচর উচ্চবিদ্যালয়ের ছাত্র শফিকুল ইসলাম বলে, ‘বর্ষকালে নৌকায় পারপার হতে গিয়ে ক্লাসে পৌঁছাতে দেরি হয়ে যায়। বাঁশের সাঁকোটাও প্রায়ই ভেঙে পড়ে। অনেক সময় মানুষ পড়ে গিয়ে আহত হন।
স্থানীয় কৃষক হযরত আলী বলেন, ‘যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না থাকায় আমাদের উৎপাদিত শাকসবজি বিক্রির জন্য নিয়ে যেতে হয় অন্য এলাকার বাজারে। এতে আমাদের খরচ বেড়ে যায়।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ নরসিংদীর নির্বাহী প্রকৌশলী শেখ আবু মো: জাকির সেকান্দার বলেন, বি ক্যাটাগরির নদীতে ডিজাইন করতে একটু সময় লাগে। এখানে (আড়িয়াল খাঁ নদে) একটি সেতু নির্মাণের প্রস্তাবনা প্রক্রিয়াধীন আছে। এরই মধ্যে প্রয়োজনীয় সার্ভে করা হয়েছে। এখন ডিজাইন পাওয়ার পর দরপত্র আহ্বান করা হবে। আশা করছি, সেতুটি নির্মাণ হলে এলাকাবাসীর দুর্ভোগ লাঘব হবে।

সর্বশেষ নিউজ