২৭, অক্টোবর, ২০২১, বুধবার

নরসিংদীতে করোনা পরিস্থিতিতেও গ্রামাঞ্চলের মার্কেটগুলোতে উপচে পড়া ভিড় মানছে না সামাজিক দূরত্ব

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি: করোনার ভয়ংকর থাবায় বিপর্যস্ত দেশ। প্রতিদিন আক্রান্ত হচ্ছে কয়েক হাজার মানুষ। বর্তমানে আক্রান্তের ১২-১৩% রোগীর ই ঠাই হচ্ছে কবরে। এই অবস্থা সামাল দিতে সরকার দফায় দফায় লক ডাউনের মেয়াদ বাড়াচ্ছে। দেশের অর্থনৈতিক চাকা চলমান রাখতে সরকার যথাযথ নিয়ম মেনে এর মাঝেই খুলে দিয়েছে দোকান এবং শপিং মল।

তবে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার মরজাল এলাকার বাস স্ট্যান্ডের মার্কেগুলোতে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। এসব মার্কের্টের দোকানের মালিকেরা যথাযথ নিয়ম পালন না করে অতিরিক্ত মুনাফার আশায় ইচ্ছামতো দোকানদারি করছে। এতে করে সাধারণ জনগণের অনেক উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা যায়। এতে অনেক ঝুঁকিও রয়েছে।

অন্যদিকে নরসিংদী সদর উপজেলার মার্কেগুলোতে দেখা যায় জনসমাগমের উপচে পড়া ভিড়। অর্থাৎ সরকারের কোন নিয়ম নীতি মানছে না কেউ। এতে ভবিষ্যতে কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ার সম্ভাবনা অত্যাধিক।

এদিকে আজ বুধবার ৫ ই মে ২০২১ মনোহরদী উপজেলার বাসস্ট্যান্ড এলাকার মার্কেটগুলোতে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে, উক্ত কাপড়ের মার্কেগুলোতে নেই কোন সামাজিক দূরত্ব। তাছাড়া দোকানদাররা কোন মাস্ক ব্যবহার করছে না। কোন স্যানিটাইজারও ব্যবহার করছে না। এ বিষয়ে সংবাদ কর্মী সাইফুল ইসলাম রুদ্র ব্যবসায়ী মোঃ আঃ জলিল বলেন, আমাদের গ্রামাঞ্চলে আসবে না কোন করোনা। তাই আমরা এসব মানি না।

অথচ রাত ৮ টা পর্যন্ত স্বাস্থ্য বিধি মেনে কেনাকাটা করতে পারবেন সবাই। কিন্তু পরিস্থিতি কিছুটা ভিন্ন। নরসিংদীর একাধিক জায়গা থেকে প্রাপ্ত তথ্যমতে, দোকান এবং শপিংমলে উপচে পড়া ভিড় দেখা যাচ্ছে। নতুন করে যেকোন সময় দোকান বন্ধের ঘোষনা আসতে পারে এমন ভয় থেকেই সবাই পরিবার পরিজন নিয়ে ছুটছে ঈদের কেনাকাটা করতে।

এতে করে স্বাস্থ্য বিধি মানা হচ্ছে না। একই দোকানে এক সাথে একাধিক লোক গাদাগাদি করে কেনাকাটা করছেন। এতে করোনা আক্রান্ত হবার ঝুঁকি থেকেই যায়। তাছাড়া অনেকের মুখেই মাস্ক দেখা যাচ্ছে না। ব্যবসা ভালো হওয়াতে খুশি ব্যাবসায়ীগন। গত ঈদের লোকসান পুষিয়ে নিতে আপ্রান চেষ্টা করে যাচ্ছেন ব্যাবসায়ীগণ।

সর্বশেষ নিউজ