৩, ডিসেম্বর, ২০২১, শুক্রবার

নরসিংদীতে দু’দিনব্যাপী মেলার প্রথম স্থানে সড়ক ও জনপথ বিভাগ

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, প্রতিনিধি: নরসিংদীতে ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী : স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল বাংলাদেশ’ উদযাপন উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী মেলায় প্রথম স্থান লাভ করে পুরস্কার অর্জন করেছেন নরসিংদী সড়ক ও জনপথ বিভাগ নির্বাহী প্রকৌশলী মোফাজ্জল হায়দার।
নরসিংদী মুছলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়াম প্রাঙ্গনে দুই দিনব্যাপী উন্নয়ন মেলায় নরসিংদী জেলা প্রশাসক অফিস, জেলা পরিষদ, এলজিইডি, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, পুলিশ সুপার, সিভিল সার্জন, পানি উন্নয়ন বোর্ড, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী অধিদপ্তর, গণপূর্ত বিভাগ, শিক্ষা বিভাগ, প্রাণীসম্পদ বিভাগ, কৃষি বিভাগ, মৎস্য বিভাগ, বিএডিসি, বিআরডিবি, তথ্য অফিস, খাদ্য নিয়ন্ত্রক অধিদপ্তর, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরসহ ১শ’ প্রতিষ্ঠান ষ্টল নিয়ে মেলায় অংশগ্রহণ করে।

এর মধ্যে সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবারসহ আরো একাধিকবার প্রথম স্থান লাভ করে পুরস্কার অর্জন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোফাজ্জল হায়দার।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন- সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. রাশেদুল হক ও উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মিজানুর রহমান পাটোয়ারী, সহকারী প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. ইকবাল হায়াত, উপ-সহকারী প্রকৌশলী বসির খান, উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফিরোজ আলম, উপ-সহকারী প্রকৌশলী শাহারিয়ার আল মামুন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোছা. ফারজানা আক্তার উর্মি, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মহিবুল্লাহ সুমন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের কম্পিটার অপারেটর মো. ইমরান হোসেন।

নরসিংদী সড়ক ও জনপথ বিভাগ নির্বাহী প্রকৌশলী মোফাজ্জল হায়দার বলেন, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীঃ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল বাংলাদেশ উদযাপন উপলক্ষে দুই দিনব্যাপী মেলায় অংশগ্রহণ করে প্রথম স্থান লাভ করে পুরস্কার অর্জন করে নরসিংদী সড়ক ও জনপথ বিভাগ এর সুনাম ধরে রেখেছেন।
তিনি আরও বলেন, বাঙালি জাতির মুক্তির স্বপ্নদ্রষ্টা, স্বাধীন বাংলার রপকার, শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ মহানায়ক, বাঙালির আশা আর স্বপ্নের প্রতীক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। এ শুধু নাম নয়, একটি ইতিহাস, একটি জারি জন্মের অমর আখ্যান, একটি অগ্নিশুদ্ধ প্রত্যয়।

তিনি বলেন, পঁচিশ বছর পাকিস্তানি অপশাসনে ক্রমাগত অবহেলার শিকার বাংলাদেশ তদানীন্তন পূর্ব পাকিস্তানে যথাযথ যোগাযোগ ব্যবস্থা মুক্তিযুদ্ধ পূর্ববর্তী সময়েও যথাযথ মানসম্মত ছিলনা। তার উপর মুক্তিযুদ্ধকালীন ক্ষয়ক্ষতির কারণে স্বাধীন বাংলাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার প্রায় অস্তিত্বই ছিল না। যুদ্ধ পরবর্তী সড়ক ও সেতু সমীক্ষা এবং কার্যক্রমের সাথে জড়িত ছিলেন সওজের সকল প্রকৌশলী।

সর্বশেষ নিউজ