৪, আগস্ট, ২০২১, বুধবার

নরসিংদীর ঘোড়াশাল পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে পৌর এলাকা অপরিচ্ছন্ন রাখার অভিযোগ

সাইফুল ইসলাম রুদ্র, নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর ঘোড়াশাল পৌরসভা শিল্প নগরী হিসাবে সারা বাংলাদেশে বিখ্যাত। এই পৌরসভা থেকে সরকারী রাজস্বও উঠছে অনেক। কিন্তু নগরবাসীর অভিযোগ পৌর মেয়র শরিফুল হক অতিরিক্ত ট্যাক্স আদায় করলেও পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখছে না ঘোড়াশাল পৌর এলাকা।

এদিকে আজ ১২ ই জুন রোজ শনিবার সংবাদ কর্মী রুদ্র ঘোড়াশাল পৌর এলাকায় গেলে, ০৪ নং ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দারা অভিযোগ করে বলেন বিগত সময়ে এই পৌর এলাকার আনাচ্ েকানাচে অনেক ময়লা-আবর্জনা পড়ে থাকলেও পৌরসভার মেয়র নিচ্ছে না এর কোন খোঁজ-খবর। এ বিষয়ে আমরা সাধারণ জনগন কিছু বলতে গেলে উল্টো আমাদেরকে নানা রকম ভয়-ভীতি দেখানো সহ হুমকি প্রদান করে।

এদিকে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক যুবক বলেন, আমি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অপরিচ্ছন্নতার ভিডিও করে ফেসবুকে ছাড়লে পৌর কর্তৃপক্ষ আমাকে ডেকে নানা রকম ভয়-ভীতি দেখানো সহ হুমকি প্রদান করেছে। এক পর্যায়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে ভিডিওটি কাঁটতে আমি বাধ্য হয়েছি।
এই ঘোড়াশাল পৌরসভার বিভিন্ন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে ১ম সংখ্যায়ই বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেতে আমাদের আগামী সংখ্যায় নিউজে চোখ রাখুন।

এদিকে এই ঘোড়াশাল পৌর এলাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাগুলো খেয়াল করলে দেখা যায় যে, টাঙ্কির ঢাকনা ভেঙ্গে পড়ে আছে। এটি মেরামত করার সময়ও পাচ্ছে পৌর কর্তৃপক্ষ অভিযোগ পথচারীদের।
এদিকে ঘোড়াশাল পৌরসভার স্থানীয় এক বাসিন্দা আসাদ মিয়া অভিযোগ করে বলেন, বিগত সময়ে আমরা পৌর কর যেভাবে দিয়ে এসেছি সেটার তুলনায় বর্তমানে ৩ গুণ বেশি কর দিতে হয় কিন্তু পৌর এলাকার কোন উন্নয়ন হচ্ছে না। যা হচ্ছে তার মধ্যেও রয়েছে বিশাল দুর্নীতি। ভয়ে কেউ মুখও খুলছে।

অপরদিকে সংবাদকর্মী সাইফুল ইসলাম রুদ্র পৌর মেয়রের নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোবাইল ফোনে তাকে পাওয়া যায় নি। পরবর্তীতে পৌরসভায় গেলে পৌরসভার এক কর্মকর্তা বলেন এটি পৌর মেয়রের বিষয় আমরা এ বিষয়ে মুখ খুলতে পারব না। এতে আমাদের বিপদ আছে।

এদিকে পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এভাবে পৌরএলাকাটি চলতে থাকলে ভবিষ্যতে এসব ময়লা আবর্জনা থেকে ডেঙ্গু মশা সহ নানা রকম রোগ জীবাণু তৈরি হবে ফলে সাধারণ জনগন বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে।

সর্বশেষ নিউজ