২৪, জুন, ২০২১, বৃহস্পতিবার

‘বদলে যাওয়া’ অ্যাতলেতিকোর সামনে ‘নতুন’ চেলসি, বায়ার্নের সামনে ‘অচেনা’ লাৎসিও

মাসখানেক আগে হলেও এই ম্যাচের পাল্লা একদিকে অনেক বেশি হেলে থাকত। এই তো, কিছুদিন আগেও চেলসি একের পর এক হারে ডুবতে বসেছিল, ওদিকে অ্যাতলেতিকো চলে যাচ্ছিল ধরাছোঁয়ার বাইরে। এরপর ফ্রাংক ল্যাম্পার্ড চলে গেলেন, এলেন তমাস তুখেল। চেলসির ভাগ্য বদলে গেল জাদুমন্ত্রের মতো, তুখেলের অধীনে সাত ম্যাচ খেলে এখনো অপরাজিত চেলসি। এর মধ্যে উঠে এসেছে লিগে পয়েন্ট তালিকার পাঁচেও। অন্যদিকে অ্যাতলেতিকোর যেন হঠাৎই ছন্দপতন হয়েছে। এই ম্যাচের আগে প্রস্তুতিটা একদমই ভালো হয়নি, লিগে হেরে এসেছে লেভান্তের কাছে। সব মিলে আজ একটা জমজমাট লড়াই হওয়ারই কথা।

করোনা ভাইরাস আর চোট এই মৌসুমে সব দলের জন্যই সমস্যা হয়ে এসেছে। অ্যাতলেতিকোরও সেই সমস্যা আছে। চোটের জন্য যেমন সিমি ব্রাসালকো, ইয়ানিক কারাসকো, হোসে হিমেনেজদের পাচ্ছেন না সিমিওনে, তেমনি করোনা পজিটিভ হওয়ার জন্য নেই হেক্টর হেরেরা। ওদিকে বেটিং-কেলেংকারির জন্য এখনো নিষিদ্ধ কিরিয়েন ট্রিপিয়ের।

সিমিওনের জন্য এর চেয়েও বেশি চিন্তার নাম ভেন্যু। করোনা সংক্রান্ত বিধিনিষেধের কারণে এই ম্যাচটা হচ্ছে বুচারেস্টে, নিজেদের মাঠে খেলার সুবিধা পাচ্ছে না অ্যাতলেতিকো। আগের সপ্তাহেই এই হোম অ্যাডভান্টেজ থেকে বঞ্চিত লাইপসিগ লিভারপুলের কাছে হেরেছিল, সিমিওনের জন্য তা একটু অস্বস্তির হতে পারে। তার ওপর নিজেদের মাঠে অ্যাতলেতিকোর রেকর্ডও দুর্দান্ত, চ্যাম্পিয়নস লিগ নকআউতে ১১টি হোম ম্যাচের মাত্র একটিতে গোল খেয়েছে তারা।

তুখেলের জন্যও কিছুটা দুশ্চিন্তা হয়ে আছে চোট। থিয়াগো সিলভাকে পাচ্ছেন না আজ, তবে কাই হ্যাভার্টজ ও ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিককে ফিট পাচ্ছেন এই জার্মান কোচ। চেলসি সেই ২০১৩ সালে সর্বশেষ ১৬ পার হয়েছিল। তাই আরেকবার সেই কাজটা করার জন্য মুখিয়ে থাকবেন তুখেল।

ক্লাব বিশ্বকাপ জিতে এসেই গোত্তা খাওয়া ঘুড়ির হাল হয়েছে বায়ার্নের। বুন্দেসলিগায় ড্র আর হারের বৃত্তে গেছে গেলো সপ্তাহটা। সর্বশেষ ম্যাচে হেরে এসেছে ফ্রাংকফুর্টের কাছে। সময়টা তাই ভালো যাচ্ছে না বায়ার্ন মিউনিখের।

এই মৌসুমে বায়ার্ন এখন পর্যন্ত আগের মতো অজেয় নয়। তার ওপর এই ম্যাচের আগে আছে চোট আর কোভিড সমস্যাও। কোরেন্তিন তোলিসো নেই চোটের জন্য, আর থমাস মুলার কোভিড-পজিটিভ হয়ে এখন আইসোলেশনে আছেন। সেটাকেও খেলার অংশ হিসেবেই দেখছেন ফ্লিক।

হ্যান্সি ফ্লিক বলেন, ‘লিগে গত সপ্তাহে খারাপ পারফরমেন্সের জন্য আমি কোনো অজুহাত দাঁড় করতে চাই না। শুধু এটাই বলবো যে আমাদের খেলার মান আশানুরূপ ছিলো না। এখন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচ সামনে। এই ম্যাচটা আমাদের জন্য বিশেষ। আর আমি চাই দলের ফুটবলাররা সেই বিশেষত্বটা অনুধাবন করে, সেই মোতাবেক নিজেদের প্রস্তুত করুক।’

পারফরমেন্সের ধারাবাহিকতা না থাকলেও ম্যাচের আগে বাভারিয়ান বস তাই নির্ভার।

অথচ সিরি’আয় শেষ ৮ ম্যাচের ৭টা জিতেও বেশ আতঙ্কে লাৎসিও। মিউনিখ জায়ান্টরা আসরের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন আর ২০০০ সালের পর এই প্রথম আসরের সেরা ১৬’তে উঠেছে ইতালিয়ান ক্লাবটা। শক্তির ফারাকটা ভালো করেই জানেন কোচ।

সিমোন ইনজাগি জানান, ‘ম্যাচটা আমাদের সাধ্য মতোই খেলতে চাই। যাতে করে লড়াইয়ে টিকে থাকার একটা সম্ভাবনা থাকে। আমি জানি আমাদের প্রতিপক্ষ দলটা অতিমানবীয় ফুটবল খেলে। তাদের বিপক্ষে জয় পাওয়া প্রায় অসম্ভব। তবে অতীত বলে, লাৎসিও বড় ম্যাচে সবসময়ই দুর্দান্ত কিছু উপহার দিতে জানে।’

লাৎসিওর জন্য এই ম্যাচটা নতুন অভিজ্ঞতাই। সর্বশেষ চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউটে তারা উঠেছে ২১ বছর আগে, যখন সিরি-আ’তে তারা ছিল বড় শক্তি। এরপর এবার নকআউট পর্ব পার হয়ে পড়ল বায়ার্নের সামনে। ইতালিয়ান দলের বিপক্ষে বায়ার্নের রেকর্ড অবশ্য দুর্দান্ত, সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচেই তারা আছে অপরাজিত।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এর আগে কখনও মুখোমুখি হয়নি দু’দল। প্রথম দেখায় শেষ হাসি কারা হাসবে তাই এখন দেখবার অপেক্ষা।

-প্যাভিলিয়ন।

সর্বশেষ নিউজ