৭, ডিসেম্বর, ২০২১, মঙ্গলবার

বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে হাবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালিত

মোঃ আব্দুস সাওার, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে হাবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালিত হয়েছে। ১১ সেপ্টেম্বর শনিবার হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি)তে ২৩ তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস। উওরের জনপদ দিনাজপুরে ১৯৯৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তৎকালীন ও বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন এবং এর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু হয়।

প্রতি বছরে এই দিনে (হাবিপ্রবি) “বিশ্ববিদ্যালয় দিবস” পালন হয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন আয়োজনের মাধ্যমে হাবিপ্রবিতে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস পালিত হয়েছে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ বিবেচনায় দিবসটি উপলক্ষে সীমিত পরিসরে কর্মসূচিসমূহ পালিত হয়। সকাল ৯ টায় প্রশাসনিক ভবনের সম্মুখে জাতীয় পতাকা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন, মুক্ত আকাশে শান্তির দূত পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে ২৩ তম হাবিপ্রবি বিশ্ববিদ্যালয় দিবসএর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। , সকাল ৯ টা ৪৫ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের পুকুরে মাছের পোনা অবমুক্তকরণ, ১১.৩০ মিনিটে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শীর্ষক অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা এবং বিশেষ মোনাজাত ও সন্ধ্যায় আলোকসজ্জা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক প্রফেসর ড. ইমরান পারভেজ এর সঞ্চালনায় মাছের পোনা অবমুক্তকরণ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন হাবিপ্রবির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার ও ফিশারিজ অনুষদের ডীন এ কে এম রুহুল আমিন। এ সময় মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর সকলকে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে দেশীয় জাতের মাছের পোনা ছাড়া হলো। ফিশারিজের পুকুরগুলোকে সংস্কার করে মাছ চাষে উপোযগি করে তোলার উদ্যোগ নেয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা কার্যক্রমকে আরো একধাপ এগিয়ে নিতে একটি অত্যাধুনিক সেন্ট্রাল ল্যাব তৈরির উদ্যোগের পাশাপাশি প্রতিটি বিভাগের ল্যাব ও শিক্ষক সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের সেশনজট নিরসনে কার্যকর ও যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করব। বিশ্ববিদ্যালয়কে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করার ক্ষেত্রে তিনি শিক্ষক, কর্মকর্তা, শিক্ষার্থী ও কর্মচারীসহ হাবিপ্রবি সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের “প্রতিষ্ঠা-প্রাপ্তি-প্রত্যাশা” শীর্ষক আলোচনা সভা সন্ধ্যা ৭.৩০ টায় ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সম্মানিত সদস্য প্রফেসর ড. মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, সূচনা বক্তব্য রাখবেন বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব এবং ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক প্রফেসর ড. ইমরান পারভেজ ।

সর্বশেষ নিউজ