১৭, সেপ্টেম্বর, ২০২১, শুক্রবার

বৈশ্বিক ব্র্যান্ডিংয়ের পরিকল্পনায় বাংলাদেশ!

স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসে বাংলাদেশের সাফল্য বিশ্বের কাছে তুলে ধরার উদ্যোগ নিচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার! এর অংশ হিসেবে মার্কিন সিএনএন ইন্টারন্যাশনাল কমার্শিয়ালের (সিএনএনআইসি) সঙ্গে চুক্তি করতে আগ্রহ দেখিয়েছে ঢাকা।

সিএনএন-এর মাধ্যমে দেশের ইতিবাচক প্রামাণ্য চিত্র প্রচার করা হবে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে এ প্রচারের কথা চিন্তা করা হচ্ছে। এ লক্ষ্যে সিএনএন ইন্টারন্যাশনাল কমার্শিয়ালের (সিএনএনআইসি) সাথে চুক্তি করা হতে পারে। প্রস্তাবটি বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২২ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের সক্ষমতার চিত্র বিশ্বব্যাপী প্রচারে আগ্রহ প্রকাশ করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে আনুষ্ঠানিক চিঠি পাঠিয়েছে ‘সিএনএনআইসি’। চিঠিতে বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিংয়ের জন্য ‘আন্ডারস্ট্যান্ডিং অন সিএনএন ইন্টারন্যাশনাল কমার্শিয়াল পার্টনারশিপ অপরচুনিটি’ শীর্ষক একটি চুক্তি সম্পাদনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, সিএনএন-এর অ্যাডভার্টাইজিং প্ল্যাটফর্ম সিএনএনআইসি যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে তাদের ব্যবসা বাড়ানোর লক্ষ্যে বিশ্বব্যাপী দর্শকদের কাছে টিভি, ডিজিটাল ও সামাজিক প্ল্যাটফর্মগুলোতে প্রচারণা চালিয়ে থাকে। মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সিএনএন-এর কাছ থেকে এ ধরনের প্রস্তাব পাওয়ার পর সেটি অনুমোদন বা এ-সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। প্রস্তাবটি অনুমোদন দেয়া হলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ‘বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউট’ (বিএফটিআই) উদ্যোগটি সমন্বয় করবে এবং সংশ্লিষ্ট বেসরকারি শিল্প ও সেবা খাতগুলো প্রচারমূলক এ উদ্যোগে অর্থায়ন করবে বলে আশা করছে মন্ত্রণালয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মতে, ২০২১ সাল বাংলাদেশের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বছর। এ বছর স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ‘মুজিব বর্ষ’ পালন করা হচ্ছে। এ সময়ে বাংলাদেশের অর্জনগুলো বিশেষত অর্থনৈতিক অগ্রগতি, স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণ, করোনার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সফলতা, রেমিট্যান্স আয় বৃদ্ধিসহ ব্যবসা-বাণিজ্যে অর্জিত সফলতা বিশ্বব্যাপী তুলে ধরা দরকার। এ ছাড়া বাংলাদেশ ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যগুলো (এসডিজি) অর্জন, ২০৩১ সালের মধ্যে উচ্চ-মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উচ্চ আয়ের সমৃদ্ধশালী মর্যাদাশীল দেশ হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ পরিপ্রেক্ষিতেও বাণিজ্য ও ব্যবসার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সক্ষমতা ও দক্ষতা, পণ্য ও পরিষেবার গুণগতমান বিশ্ব দরবারে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা জরুরি। দেশের গুরুত্বপূর্ণ ও ক্রমবর্ধমান শিল্প-বাণিজ্য খাতের সম্ভাবনাগুলো সিএনএন-এ প্রোমো অডিও ভিজ্যুয়ালের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী সম্প্রচার করা হলে তা আন্তর্জাতিক বাজারে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণ, বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং দীর্ঘমেয়াদে দেশের সামষ্টিক অর্জনে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

সর্বশেষ নিউজ