২১, জানুয়ারী, ২০২২, শুক্রবার

মুন্সিগঞ্জে ব্যাংক থেকে স্কুল শিক্ষিকার সাড়ে চার লাখ টাকা উধাও!

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সোনালী ব্যাংক মুন্সিগঞ্জ শাখায় টাকা জমা দিতে এসে সাড়ে চার লাখ টাকা খোয়ালেন নুরুন নাহার (৬৫) নামে এক অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষিকা।

আজ বুধবার (২ জুন) দুপুর ১২টার দিকে মুন্সিগঞ্জ শহরের মানিকপুর এলাকার ওই বৃদ্ধা পৌর এলাকার পুরাতন কাচারীতে সোনালী ব্যাংক শাখায় সাড়ে চার লাখ টাকা জমা দিতে আসেন। জমা রশিদ লিখে টাকা ব্যাংকে জমা দিতে ভ্যানেটি ব্যাগে হাত দিয়ে দেখেন তাঁর ব্যাগে থাকা সাড়ে চার লাখ টাকা উধাও হয়ে গেছে।

সোনালী ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, ঘটনার পর পর ব্যাংক ম্যানেজারকে অবহিত করলে ম্যানেজার ব্যাংকে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজে চেক করে দেখেন, বেলা ১২টার দিকে নুরুন নাহার টাকা জমা দিতে ব্যাংকে প্রবেশ করেন। এরপর এক বোরখা পরিহিত মহিলা তার ৩ বছরের এক ছেলেকে কোলে নিয়ে ব্যাংকে প্রবেশ করে ভীরের মধ্যে ঢুকে নুরুন নাহারকে অনুসরন শুরু করে। ব্যাংক গ্রাহক নুরুন নাহার যখন জমা রশিদ বের করে লিখতে শুরু করেন ঠিক সে মূর্হুতে মহিলা পকেটমার কৌশলে নুরুন নাহারের সঙ্গে থাকা ভ্যানেটি ব্যাগ থেকে মিনি শপিং ব্যাগে থাকা সাড়ে চার লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে দ্রুত ব্যাংক থেকে সটকে পড়ে।

এ ব্যাপারে মুন্সিগঞ্জ সোনালী ব্যাংকের এ.জি.এম নুরু উদ্দিন জানান, ব্যাংকের গ্রাহক নূরুন নাহার ব্যাংকে টাকা জমা দিতে এসে সাড়ে চার লাখ টাকা খোয়ালেন, যা খুবই দুঃখজনক। আমরা পুরো ঘটনাটি সিসি টিভিতে দেখেছি। কিন্তু মহিলা পকেটমারটি বোরকা পরিহিত মুখোশ পরা, তাই তাকে চিহ্নিত করতে পারিনি। তারপরও খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, টাকা খোয়া যাওয়ার ব্যাপারে পুলিশকে অবহিত করেছেন ভুক্তভোগী বৃদ্ধা। গ্রাহকদের উচিত ব্যাংকে এসে টাকা পয়সা খুব সর্তকতার সাথে লেনদেন করা। এ ধরনের ঘটনার জন্য ব্যাংক কতৃপক্ষের দুঃখ প্রকাশ করা ছাড়া আর কিছুই করার নেই।

অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষিকা নূরুন নাহার জানান, তিনি মাঝে মধ্যেই এই ব্যাংকে লেনদেন করে থাকেন। কিন্তু মহিলা পকেটমারের খপ্পরে পরে দিনে দুপুরে সবার সামনে সাড়ে চার লাখ টাকা পকেটমার হবে তা চিন্তাই করতে পারেননি তিনি।

সর্বশেষ নিউজ