১৭, সেপ্টেম্বর, ২০২১, শুক্রবার

মুশতাক ড্রাগ ব্যবহার করতেন কিনা তদন্তে জানা যাবে : তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, কারাগারে লেখক মুশতাকের অনাকাঙ্খিত। এই মৃত্যুকে কেন্দ্র করে একটি মহল পানি ঘোলা করার চেষ্টা করছে। অতীতেও পানি ঘোলা করার চেষ্টা হয়েছে এবং এতে কোনো লাভ হয়নি, এবারও কোনো লাভ হবে না বলে জানান তিনি।

আজ সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সিনেমা হল নির্মাণ-সংস্কারে ব্যাংক ঋণ চালুর প্রেক্ষিতে তথ্যমন্ত্রীকে চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির ধন্যবাদ জ্ঞাপন ও সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুশতাকের মৃত্যু কিভাবে হয়েছে সেটাতো আমি জানি না, এর জন্য একটি তদন্ত কমিটি হয়েছে। তদন্ত কমিটির রিপোর্টে বেরিয়ে আসবে উনি কোনো ড্রাগ ব্যবহার করতেন কিনা, ওনার কিভাবে মৃত্যু হয়েছে, হার্ট এটাকে মৃত্যু হয়েছে কিনা। কিংবা কারা কর্তৃপক্ষের গাফিলতি ছিলো কিনা, সেটি তদন্তে বেরিয়ে আসবে। তবে এ মৃত্যুর জন্য আমি নিজেও ব্যথিত। এটা অনভিপ্রেত অবশ্যই। তদন্ত কমিটি হয়েছে, কমিটির মাধ্যমে সব বেরিয়ে আসবে নিশ্চয়ই।

এসময় ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট নিয়েও কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। বিভিন্ন দেশের পরিসংখ্যান তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘পৃথিবীর সব দেশে এ ধরনের আইন হয়েছে কিংবা হচ্ছে। উন্নত দেশগুলোতেও এ ধরনের অপরাধের ক্ষেত্রে গ্রেফতার করা হয় এবং শাস্তি নিশ্চিত করা হয়। তবে এ আইনের যাতে কোনো ব্যতয় না ঘটে সেজন্য আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

জাতীয় প্রেসক্লাবের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি প্রসঙ্গে বলেন, প্রেসক্লাবকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে ছাত্রদল পুলিশের ওপরে হামলার চালিয়েছে। হাজার হাজার ইট-পাথরের টুকরা তারা পুলিশের ওপরে নিক্ষেপ করেছে। তারা আগে থেকেই এসব সংগ্রহ করে রেখেছিল উল্লেখ করে আরো বলেছেন, যারা প্রেসক্লাবকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা উচিত হয়নি।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘প্রেসক্লাব একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান প্রেসক্লাব সাংবাদিকদের প্রতিষ্ঠান। সব রাজনৈতিক দলমত ও পথের জন্য এটি উন্মুক্ত। সুতরাং সেখান থেকে যদি পুলিশের ওপরে হামলা হয়, লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমণ করা অনভিপ্রেত ঘটনা।’

সর্বশেষ নিউজ