১৭, সেপ্টেম্বর, ২০২১, শুক্রবার

ময়লার ঠিকাদারি কেড়ে নেয়ায় ছাত্রলীগ নেতার আত্মহত্যা

রাজধানীর শুক্রাবাদ এলাকায় আবু বক্কর সিদ্দিক রুবেল (৩৫) নামে সাবেক এক ছাত্রলীগ নেতার গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (২২ জুন) সকাল ৯টার দিকে শুক্রাবাদের ৭২/১ ভাড়া বাসা থেকে তাকে উদ্ধার

করা হয়। স্বজনদের অভিযোগ, সাব কন্ট্রাক্টে নেওয়া সিটি করপোরেশনের ময়লার লাইন পরিচালনার দায়িত্ব কেড়ে নেওয়ায় হতাশাগ্রস্ত হয়ে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। স্থানীয় যুবলীগ ও ছাত্রলীগের তিন নেতা রুবেলের কাছ থেকে লাইন পরিচালনার দায়িত্ব কেড়ে নেন।

জানা গেছে, নিহত রুবেল বরিশালের হিজলা উপজেলা হরিনাথ পুর গ্রামের মৃত আব্দুল মালেকের ছেলে। শুক্রাবাদে পরিবারসহ ভাড়া থাকতেন। দুই ভাই এক বোনের মধ্যে সবার বড় ছিলেন রুবেল। নিহতের স্ত্রী লাবনী আক্তার বলেন, মঙ্গলবার সকালে আমি রান্নার কাজে ব্যস্ত ছিলাম। এক ফাঁকে রুমে গিয়ে দেখি ফ্যানের সঙ্গে লুঙ্গি পেচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়েছেন রুবেল। পরে অচেতন অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় শমরিতা হাসপাতাল ও পরে বেলা ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

রুবেলের স্ত্রী আরও বলেন, আমার স্বামী আবু বকর সিদ্দিক রুবেল ১৭ নং ওয়ার্ডে সাব কন্ট্রাক্টে সিটি করপোরেশনের ময়লার লাইন পরিচালনা করতেন। গত ৯ জুন আমার স্বামীর কাছ থেকে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের তিন নেতা জোরপূর্বক লাইনটির দায়িত্ব নিয়ে নেয়। যদিও আমাদের সঙ্গে ১ বছরের চুক্তি ছিল। আমার স্বামী তাদের কাছ থেকে ১ লাখ ৩৫

হাজার টাকায় লাইনটি নিয়েছিলেন। লাইন নিয়ে নেওয়ার পর থেকেই তিনি হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। বিভিন্ন সময় মাথার চুল একা একাই ছিঁড়তেন। আজ সকালে তিনি ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। ঝুলন্ত অবস্থা থেকে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসি। মাত্র ১০ মাস আগে আমাদের বিয়ে হয়েছে। এখনো বিয়ের অনুষ্ঠান করা হয়নি বলেও জানান তিনি।

রুবেলের ছোট ভাই ওসমান গনি বলেন, আমার ভাই কলাবাগান থানা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি সিটি করপোরেশনের ময়লার টেন্ডার পেয়ে কাজ করতেন। শিশির, সজীব ও শিমুল ময়লার লাইনটি ছেড়ে দেওয়ার জন্য আমার ভাইকে বিভিন্ন সময় হুমকি দিয়ে আসছিল। পরে গত ৯ জুন তারা ভাইয়ের লাইনটি জোর করে নিয়ে নেয়। এরপর থেকে তিনি মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন। এছাড়া আমার ভাইয়ের বিপুল পরিমাণ টাকা ঋণ ছিল। এসব নিয়ে তিনি হতাশায় ভুগছিলেন।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের সহকারী ইনচার্জ (এএসআই) আব্দুল্লাহ খান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আবু বক্কর সিদ্দিক রুবেলকে হাসপাতালে নিয়ে আসার পরপরই চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় অবগত করা হয়েছে।

সর্বশেষ নিউজ