১, জুলাই, ২০২২, শুক্রবার

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সহযোগী আফগানদের ‘হন্যে হয়ে খুঁজছে’ তালেবান

‘সন্ত্রাস দমনের কথা বলে’ আফগানিস্তানে দীর্ঘদিন আগ্রাসন চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র এবং ন্যাটো জোটের সদস্য দেশগুলো। এ আগ্রাসন চালানোর ক্ষেত্রে যেসব আফগান বিদেশি সেনাদের সহায়তা করেছেন, তাদের তালেবান হন্যে হয়ে খুঁজছে বলে দাবি করা হয়েছে জাতিসংঘের একটি গোপন নথিতে।

এ গোপন নথির ওপর ভিত্তি করে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমস।

ওই গোপন নথিতে দাবি করা হয়, তালেবান সেসব আফগানকে হন্যে হয়ে খুঁজছে, যারা যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর সেনাদের সহায়তা করেছেন— এমনকি কাবুল বিমানবন্দরের ভিড়ের মধ্যেও তারা সেসব ব্যক্তিকে খোঁজার কাজ অব্যাহত রেখেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তালেবানের হাতে একটা তালিকা রয়েছে। যাদের তারা জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় এবং সাজা দিতে চায়।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, তালেবান ঘরে ঘরে গিয়ে সেসব আফগানকে খোঁজা অব্যাহত রেখেছে। একই সঙ্গে তালেবানের হাতে ওই ব্যক্তি আত্মসমর্পণ না করা পর্যন্ত তার পরিবারের সদস্যদের গ্রেফতার বা হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

দীর্ঘ ২০ বছরের যুদ্ধ শেষে আফগানিস্তান ছেড়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। ১৫ আগস্ট কাবুল দখলের মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে পুনরুত্থান হয় তালেবানের। এর পর যেসব আফগান বিদেশি সেনাদের সহযোগিতা করেছেন, তারা দিন পার করছেন শঙ্কার মধ্যে। দেশে ছেড়ে পালানোর চেষ্টায় কাবুল বিমানবন্দরে আফগানদের ভিড় তারই নমুনা।

এদিকে দেশ ছাড়তে চাওয়া আফগানদের তালেবান বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ডেপুটি সেক্রেটারি অব স্টেট ওয়েন্ডি শেরম্যান বলেন, আমরা জানতে পেরেছি— তালেবান যে ঘোষণা দিয়েছে এবং আমাদের সরকারকে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, তার সঙ্গে কাজের কোনো মিল নেই। আফগানদের মধ্যে যারা দেশ ছাড়তে চাইছেন, তাদের বিমানবন্দরে যেতে বাধা দেওয়া হচ্ছে।

কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর তালেবান শহরজুড়ে তল্লাশিচৌকি বসিয়েছে। এমনকি বিমানবন্দরে প্রবেশের সব মুখেই তাদের পাহারা রয়েছে। ফলে যেসব আফগান দেশ ছাড়তে চান, তাদের এসব তল্লাশিচৌকি পার হয়ে যেতে হচ্ছে। আর এ সময়ই বাধা দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ।

সর্বশেষ নিউজ