২৮, অক্টোবর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

যুদ্ধ এখনও শেষ হয়নি: নেইমার

বিজয়ীর অনেক মিত্র। পরাজিতের কোনো বন্ধু নেই। নেইমার-এমবাপ্পে নতুন করে উপলব্ধি করছেন পুরনো কথাটা।

বুধবার রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনালের প্রথম লেগে ম্যানসিটির কাছে ২-১ গোলে হেরেছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)।

অথচ পার্ক দেস প্রিন্সেসে ম্যাচে অধিনায়ক মার্কুইনহোসের হেডে প্রথমে এগিয়েছিল পিএসজি। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে সমতায় ফিরে জয়সূচক গোলটি দিয়ে দেয় ম্যানসিটি।

এমন ম্যাচ দেখে পিএসজি সমর্থকরা হতাশ হওয়ারই কথা। কারণ পুরো ম্যাচজুড়ে দলের সেরা দুই তারকা নেইমার ও এমবাপ্পে ছিলেন নিষ্প্রভ।

পর দিন ফরাসি পত্রিকাগুলো রীতিমতো ধুয়ে দিয়েছে এ দুই তারকাকে। এল একুইপে পত্রিকা মাঠের এমবাপ্পেকে তুলনা করেছে ভূতের সঙ্গে। দশের মধ্যে মাত্র তিন নম্বর দিয়েছে তাকে এই কাগজ।

তারা লিখেছে— ‘পিএসজির ফরোয়ার্ড ছিলেন একেবারে আনমনা,’ নেইমারও ছাড় পাননি এল একুইপের রায় থেকে।

ফ্রান্সের ফুটবল বিশেষজ্ঞ পিএসজির সাবেক উইঙ্গার জেরোমে রোথেনে বলেছেন, ‘ফুটবলীয় মেধায় কিংবা মানসিকতায় নেইমার এদিন নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারেননি।’

এমন সব হতাশাজনক মন্তব্যের পর নেইমার জানিয়েছেন, তাদের যুদ্ধ এখনও শেষ হয়ে যায়নি। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে হেরে পিছিয়ে পড়লেও মঙ্গলবার সিটির ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ফিরতি লেগে খেলবেন নেইমাররা। সেই ম্যাচকেই যুদ্ধের ময়দানের সঙ্গে তুলনা করলেন নেইমার।

হারের পর ম্যাচ শেষে টুইটারে নেইমার লেখেন, ‘আমরা একটা লড়াইয়ে হেরেছি। কিন্তু যুদ্ধ এখনও শেষ হয়নি। আমি বিশ্বাস করি, আমরা যেমন খেলেছি তার চেয়ে ভালো খেলতে পারি।’

চ্যাম্পিয়নস লিগের নকআউট পর্বে নিজের সবশেষ ছয় ম্যাচে গোল করতে পারেননি নেইমার। গ্রুপপর্বের বাইরে সবশেষ গোলটি করেছিলেন ২০১৯-২০ আসরে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে।

সিটির বিপক্ষে পিএসজির পরিসংখ্যানও আশানুরূপ নয়। ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় চার ম্যাচে সিটির বিপক্ষে নেই কোনো জয়। দুটি করে ড্র ও হার।

তাই নেইমার সেই যুদ্ধে কেমন লড়াই চালাতে পারবেন তা নিয়ে শঙ্কিত পিএসজিসমর্থকরা।

সর্বশেষ নিউজ