৭, ডিসেম্বর, ২০২১, মঙ্গলবার

যেভাবে জনগণের ব্যক্তিগত জীবনে হস্তক্ষেপ করছে চীনের সরকার

চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি (সিসিপি) দেশটির জনগণের ব্যক্তিগত জীবনে হস্তক্ষেপ করছে। কয়েকদিন পর পরই দেশটির জনগণের জন্য নিত্যনতুন নীতিমালা আনছে চীন। সেসব নীতিমালায় বলা হচ্ছে, দেশটির জনগণ বিশেষ করে শিক্ষার্থীরা কিভাবে তাদের জীবনযাপন করবে।

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সম্প্রতি দেশটির ১৮ বছরের কম বয়সী শিশুরা স্কুলের পর কতক্ষণ ভিডিও গেম খেলতে পারবে, টিভিতে কোন ধরনের তারকাদের প্রদর্শন করা যাবে, এমনকি ভক্তরা তাদের সেলিব্রিটি তারকাদের সমর্থন জানাতে কি ধরনের কর্মকাণ্ড করতে পারবেন- সেসব বিষয় চীনা সরকারের তরফ থেকে নির্ধারণ করে দেওয়া হচ্ছে।

শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে যেতে বাধ্য করতে চীনের সরকার। দেশটির সরকারি স্কুলগুলো শুধুমাত্র চীনা ভাষাতেই শিক্ষা দেওয়া হয়। এমনকি সম্প্রতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ওপর চাপ কমানোর অজুহাত দেখিয়ে প্রাইভেট পড়ার বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে চীনের সরকার।

এ ব্যাপারে শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক দালি ইয়ান জানান, বিনোদন আর অন্য সবকিছুর ওপর এই নিয়ন্ত্রণ দেখে মনে হচ্ছে, সবার পছন্দের ক্ষেত্র উল্লেখযোগ্যভাবে সংকীর্ণ হয়ে যাচ্ছে।
বিশ্লেষকরা জানান, জনগণের ওপর চীন সরকারের এই হস্তক্ষেপ দীর্ঘ পরিকল্পনার ফসল। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সমাজ ও অর্থনীতির প্রতিটা ক্ষেত্রেই হস্তক্ষেপ করছে চীনের সরকার।

বেইজিংয়ের একজন স্বাধীন রাজনৈতিক বিশ্লেষক উ কিয়াং এ ব্যাপারে জানান, এসব নীতিমালা চীনা তরুণদের সরকার ঘোষিত ‘নতুন যুগ’ গ্রহণ করার জন্য শি জিনপিংয়ের প্রচেষ্টার অংশ।

সর্বশেষ নিউজ