২৮, অক্টোবর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

শফী রাষ্ট্রপতি-বাবুনগরীকে প্রধানমন্ত্রী করে হেফাজতের মন্ত্রিসভা!

সম্পূর্ণ অরাজনৈতিক দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করলেও ক্ষমতার মোহে একসময় অন্ধ হয়ে পড়েন হেফাজতে ইসলামের নেতারা। রাষ্ট্রক্ষমতায় যেতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের সামনে রেখে পর্যায়ক্রমে চালানো হয় সহিংসতা।

সম্প্রতি দেশজুড়ে তাণ্ডবের ঘটনায় গ্রেফতার হেফাজত নেতাদের জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে আসে দলটির সরকারবিরোধী নানা পরিকল্পনা। শুধু সহিংসতার মাধ্যমে সরকার পতনই নয়, ক্ষমতায় গেলে নিজেদের সরকার গঠনের রূপরেখাও চূড়ান্ত করেছিলো দলটি।

পুলিশ সূত্র জানায়, হেফাজতের সবচেয়ে আলোচিত নেতা মামুনুল হককে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে প্রতিনিয়তই নানা ধরনের চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসছে। ২০১৩ সালের ৫ মে শাপলা চত্বর থেকে ক্ষমতায় যেতে প্রায় চূড়ান্ত প্রস্তুতি ছিলো হেফাজতের। এজন্য সাম্ভাব্য রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীসহ তথাকথিত মন্ত্রিসভার জন্য দলের নেতাদের নাম চূড়ান্ত করা হয়।

তবে সংশ্লিষ্টদের মতে, এটি ছিলো হেফাজত ইসলামের কল্পিত মন্ত্রিসভা। ৫ মে শাপলা চত্বর থেকে হেফাজতের নেতা-কর্মীরা যদি বিতাড়িত না হতো তাহলে হয়তো পরের দিন একটা ‘তালেবান রাষ্ট্রের মতো’ রাষ্ট্র কাঠামো তৈরির পরিকল্পনা ছিলো তাদের।

২০১৩ সালের ৫ মে ঢাকা অবরোধের নামে শাপলা চত্বরে বিক্ষোভ কমূর্সচিতে তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলাম। এ ঘটনায় পরদিন গ্রেফতার করা হয় সংগঠনটির তৎকালীন মহাসচিব, বর্তমান আমির জুনায়েদ বাবুনগরীকে। তিন মামলায় ২২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয় তার। ১৩ দিনের রিমাণ্ড শেষে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। তড়িঘড়ি করে জামিনে মুক্ত হন বাবুনগরী।

সাম্প্রতিক সহিংতার মামলায় সংগঠনটির দুই ডজন নেতা গ্রেফতার হয়েছেন। এরমধ্যে মামুনুল হকসহ ৯ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পল্টন ও মতিঝিল থানা পুলিশ।

জিজ্ঞাসাবাদে মামুনুল হক জানিয়েছেন, সরকার পতনে ৫ মের আগে বিএনপি-জামায়াত নেতাদের নিয়ে একটি বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে রাষ্ট্রক্ষমতায় গেলে জুনায়েদ বাবুনগরীকে প্রধানমন্ত্রী করে কল্পিত মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়।

ডিএমপি মতিঝিল বিভাগের উপ-কমিশনার নুরুর ইসলাম বলেন, বিএনপি এবং জামায়াত তাদের সঙ্গে এক হয়ে যাওয়ার পর তারা রাষ্ট্রের স্বপ্ন দেখে। উপরের কাঠামোটা তৈরি হয়েছিল। জুনায়েদ বাবুনগরীকে প্রধানমন্ত্রী করা হয়েছিল, আহমেদ শফি সাহেবকে রাষ্ট্রপতি। এ রকম শীর্ষ নেতাদের বণ্টন হয়ে গিয়েছিল।

তিনি জানান, তদন্তে জুনায়েদ বাবুনগরীর সম্পৃক্ততা পেলে তাকেও বিচারের আওতায় আনা হবে।

ডিসি বলেন, হেফাজতে তার কী অবস্থান, সেটা আমরা বিবেচনায় নেব না। আমরা দেখব, অপরাধীর মানদণ্ডে তিনি অপরাধী কিনা।

এদিকে, নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় হওয়া ধর্ষণ, ভাঙচুরের তিন মামলায় হেফাজত নেতা মামুনুল হকের ২৪ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। আগামী ৯ মে এ বিষয়ে আদেশ দেবেন আদালত।

সর্বশেষ নিউজ