১৭, সেপ্টেম্বর, ২০২১, শুক্রবার

শ্রীনগরে টানা বৃষ্টিতে ভোগান্তি

মোহন মোড়ল,শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: টানা বৃষ্টির কারণে মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। একদিকে অতি বৃষ্টির ঢলের কারণে বিভিন্ন কাঁচা পাকা রাস্তাঘাট বিধ্বস্ত হয়ে পড়ছে। কাঁদাযুক্ত ভাঙ্গাচূড়া নাকাল গ্রামীন এসব রাস্তাঘাটে চলাফেরায় মানুষের চরম দুর্ভোগ হচ্ছে। অপরদিকে বৃষ্টির কারণে সবজি চাষাবাদে ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। অন্যদিকে লাগাতার ভাড়ী বর্ষনের কারণে কৃষি শ্রম, গবাদী পশু পাখী লালন পালনসহ বিভিন্ন কাজকর্মে বেঘাত ঘটছে। এতে করে বৃষ্টির সার্বিক পরিস্থিতিতে নি¤œআয়ের কর্মজীবি মানুষগুলো গৃহবন্দী ও কর্মহীন হয়ে পড়ছেন। মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার বিভিন্ন স্থান ঘুরে এমন চিত্রই লক্ষ্য করা গেছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বৃষ্টিকালীন সময়ে ঢলের পানিতে উপজেলার বিভিন্ন খালে-বিলে, নদী-নালায় ও পুকুরে দিনদিন পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। অতি বৃষ্টির ঢলের পানির তোড়ে কাঁচা-পাকা প্রায় রাস্তাঘাটের অনেকাংশে ভেঙ্গেচূড়ে খানাখন্দে ভওে গেছে। এছাড়াও গ্রামীন কাঁচা রাস্তারগুলোর বর্তমান অবস্থা একেবারেই নাজুক হয়ে পড়েছে। কাঁদাযুক্ত পিচ্ছিল এসব রাস্তাঘাট চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এসব নাজুক রাস্তার কারণে কখনও কখনও অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে কোনও যানবাহন মিলছেনা। লক্ষ্য করা গেছে, শুক্রবার সকালে ভাগ্যকুল-দোহার সড়কের তালুকদার বাড়ির সামনে রাস্তার গর্তে মালবাহী ট্রাক উল্টে পড়ে থাকতে দেখা গেছে। এছাড়াও শ্রীনগর সদব ইউনিয়নের হরপাড়া মোল্লাবাড়ি রাস্তা, কামারগাঁও আইডিয়াল স্কুল রোড, নতুন বাজার সড়ক, বৈচারপাড় রাস্তা, কুকুটিয়া-তন্তর সড়ক, খোদাইবাড়ি-দত্তগাঁও রাস্তা, ব্রাহ্মখোলা-পানিয়া রাস্তাসহ বেশকিছু বেহাল বৃষ্টির কারণে আরো নাজুক হয়ে পড়েছে। লক্ষ্য করা গেছে, উপজেলার বিভিন্ন সবজির বাগানে বৃষ্টির পানি জমে থাকতে দেখা গেছে। দেখা গেছে, টানা বৃষ্টির কারণে নি¤œআয়ের কর্মজীবি অনেকেই চায়ের দোকানে বেকার সময় কাটাচ্ছেন। অতিবৃষ্টি এখানকার জনজীবন অতিষ্ট করে তুলেছে। বৈরী আবহাওয়ার কারণে বয়স্ক মানুষ ও শিশুরা সর্দি-জ্বর ও ঠান্ডা জনিত রোগে আকান্ত হচ্ছেন। রবিবার সকালেও থেমে থেমে বৃষ্টি হতে দেখা গেছে।
এ সময় পথচারীরা জানায়, বৃষ্টিতে রাস্তাঘাট নাকাল করে দিচ্ছে। এতে করে কাঁদাযুক্ত-পিচ্ছিল ও ভাঙ্গাচূড়া রাস্তায় মাঝে মধ্যেই দুর্ঘটনা ঘটছে। নতুন বাজারের দোকানীরা বলেন, বৃষ্টির পানি জমে বাজারের অলিগলীতে প্রায় হাঁটু পানি জমেছে। পানি নিস্কাশনের জায়গা সব অবৈধভাবে ভরাট করা হয়েছে। মানুষ ঠিকমত হাটা চলা ফেরা করতে পারছেন না। ডাক বাংলা মার্কেটের সামনে দুলাল, দেলোয়ার, রফিকসহ বেশ কয়েকজন বলেন, দিনমজুরের কাজ করেন তারা। টানা বৃষ্টির কারণে গত ৩/৪ দিন যাবত তারা সম্পূর্ণ বেকার হয়ে পড়ছেন। কি করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না। হরপাড়া এলাকার কৃষক কাজল মিয়া বলেন, আমার বিস্তীর্ণ সবজির বাগানে বৃষ্টির পানি জমে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে। পানি নিস্কাশনের কোন ব্যবস্থা নেই এখানে। তিনি বলেন, বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে সবজি চাষে কয়েক লাখ টাকা লোকসান হবে তার।

সর্বশেষ নিউজ