২৮, অক্টোবর, ২০২১, বৃহস্পতিবার

শ্রীনগরে সরকারী খাল রক্ষায় আঃ লীগের মানব বন্ধনে ইউপি চেয়াম্যানের সন্ত্রাসী হামলা আহত ৩

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ)প্রতিনিধি: মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে সরকারী খাল রক্ষায় উপজেলা আওয়ামী লীগের শান্তিপূর্ণ মানব বন্ধনে স্থানীয় ইউপি চেয়াম্যান আজিজুল ইসলামের সন্ত্রাসী হামলায় তিন জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। শনিবার দুপুর ১২ টার দিকে উপজেলার ষোলঘর ইউনিয়নের কালাম চেয়ারম্যানের বাড়ী ( বর্তমান আজিজুলের বাড়ী ) সংলগ্ন এ ঘটনা ঘটে।

আহত আওয়ামীলীগ নেতা তাহের মেম্বার ও শ্রীনগর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা জনি খান সহ মোঃ মানিক মিয়া। মারাত্মকভাবে আহত হলে তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য উপজেলা শ্রীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করাহয় ।
আহত আওয়ামীলীগ নেতা তাহের আলী মেম্বার বাদী হয়ে, ঘটনার নায়ক ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম সহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীর ১২ জনকে বিবাদী করে থানা একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার আড়িয়াল বিল হতে ষোলঘর বাজার দিয়ে বয়ে যাওয়া ষোলঘর মৌজার আর এস ৬৬২৬ দাগের সরকারী খালটি গত কয়েকদিন যাবৎ দখলের উদ্দেশে ষোলঘর ইউনিয়নের বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম অবৈধভাবে বালি ভরাট করেন ।
খাল দখলের প্রতিবাদ জানিয়ে, শনিবার দুপুর ১২ টায়।
স্থানীয় আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুল ইসলাম উজ্জলের নেতৃত্বে, ইদ্রিস মিয়া, তাহের আলী মেম্বার, জনি খান সহ স্থানীয় প্রায় ২ শত লোক মিলে । অবৈধভাবে ভরাটকৃত সরকারী খালের উপর দাড়িয়ে শান্তিপূর্ণ ভাবে মানব বন্ধন করছিল।

খবর পেয়ে ( বিবাদী ) চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম ও তার ছোট ভাই নজরুল ইসলামসহ একই ইউনিয়নের ইউসুফ, আক্কাস, সাহাবুদ্দিন, অমিত, সুমন, রাজু দেওয়ান, রোমান, মামুন, আশিক, রফিকসহ অজ্ঞাত আরো ১ শত জনের একটি সন্ত্রাসী দল হাতে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে মানব বন্ধনের উপর অতর্কিত হামলা করে।
এ সময় ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম দেন হুকুম দেন মারপিটের জন্য,মানব বন্ধনে থাকা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মী ও নিরীহ জনতার উপর আক্রমন করে এলোপাথারী মারপিট করে জখম করে।
আজিজুল ইসলাম চেয়ারম্যানের অন্যতম ভাড়াকরে আনা এলাকার চিহ্নিত সুমন নামের এক সন্ত্রাসী হাতুরি দিয়ে তাহের মেম্বারের মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করে। ছাত্রলীগ নেতা জনি ও মানিক মিয়া কে, গুরুতর জখম করেন ,আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে স্থানীয়রা ।

এব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞার কাছে জানতে চাইলে তিনি
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব নিয়েছে।বিষয়টি মীমাংসা করার জন্য। এব্যাপারে শ্রীনগর সহকারী কমিশনার( ভুমি) কেয়া দেবনাথের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি সংবাদ পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে ফোন দিয়েছি এবং সরকারী খালের উপর সাইনবোর্ড লাগিয়ে দিয়েছি।
এ বিষয়ে ইউপি চেয়াম্যান আজিজুল ইসলামের মোবাইলে ফোন দিয়ে ঘটনা জান্তে চাইলে সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ফোন কেটে দেন তিনি।

সর্বশেষ নিউজ