৬, জুলাই, ২০২২, বুধবার

সর্বাত্নক লকডাউন: কঠোর অবস্থানে তালা উপজেলা প্রশাসন

এসএম বাচ্চু,তালা: সরকার ঘোষিত সপ্তাহব্যাপী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে তালা উপজেলার মানুষের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে মাঠে টহলে আছেন সেনাবাহিনী, পুলিশ,আনসার সদস্যরা।
চলমান লকডাউন থাকবে আগামী ৭ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত।প্রথম দিন সকাল হতে উপজেলা হাট-বাজার গুলো বন্ধ সড়কে অন্যান্য দিনের মতো, নেই যানবাহনের চাপ।

সরেজমিনে তালা উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে দেখা যায়, এলাকার বিভিন্ন পয়েন্টে সকাল থেকেই পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া সদরের এরশাদ চত্বর সহ উপজেলার প্রবেশধীকার এলাকায় বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। এই চেকপোস্টে তালা থানার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা জন ও যান চলাচল নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন। জরুরি প্রয়োজনে যারা সড়কে বেরিয়েছেন তাদের মুখোমুখি হতে হচ্ছে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের।

লকডাউন কার্যকর বেগবান করতে উপজেলা প্রতিটি এলাকা জুড়ে জনসচেতনতা বাড়াতে কাজ করে যাচ্ছেন তালা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তারিফ উল হাসান, এসিল্যান্ড এসএম তারেক সুলতান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ওবাইদুল রহমান, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি সাংবাদিক এসএম নজরুল ইসলাম, তালা থানার অফিসার ইনচার্জ মেহেদী রাসেল,পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ ওয়াহিদ মুর্শেদ,তালা থানার অফিসার ইনচার্জ(তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ। শুধু কঠোর অবস্থান নয় বরং আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে জেল জরিমানা গুনতে হচ্ছে ভ্রাম্যমাণ আদালতে।

তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. তারিফ-উল-হাসান ও এসিল্যান্ড এসএম তারেক সুলতান এর নেতৃত্বে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিশেষ সচেতনতামূলক অভিযান ও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে গত ৩১দিনে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।
তালা থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, করোনা সংক্রমণ হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনের বিধিনিষেধ বাস্তবায়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। সড়কে তালা থানার পুলিশের টহল চলবে। কেউ যেন অপ্রয়োজনে বাইরে বের না হয় এবং ঘোরাফেরা না করে সেটি নিশ্চিত করতে আমাদের একাধিক টিম কাজ করে যাচ্ছে।

উপজেলা জাতীয় পার্টি সভাপতি সাংবাদিক এস এম নজরুল ইসলাম বলেন, তালা উপজেলা সহ দেশের সকল জনসাধারণ কে নিরাপদে থাকতে আহ্বান করছি। অপ্রয়োজনে কেউ ঘরের বাইরে বের হবেন না।এই ক্রান্তিলগ্নে সর্বস্তরের মানুষকে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।
তালা উপজেলা চেয়ারম্যান বাবু সনৎ কুমার বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিপরিষদ জনগণের কথা ভেবে যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেটা কে স্বাগত জানায়। তালা থানার পুলিশ ১২ টা ইউনিয়ন বিড ভাগ করে নিয়ে কাজ করছেন। তাছাড়া ইউএনও ও এসিল্যান্ড তারাও দুটো ইউনিট ভাগ করে কাজ করছেন। তাছাড়া রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা, সাংবাদিকও সুশীল সমাজের লোকজন সকাল থেকে লকডাউন পালন করতে কাজ করে যাচ্ছে। আজকে এখন পর্যন্ত রাস্তাঘাটে সাধারণ মানুষ দেখা যাচ্ছে না। গন পরিবহন চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ আছে। সর্বোপরি সকলকে নিরাপদে থাকতে বলেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারিফ-উল- হাসান আমাদের প্রতিনিধি এসএম বাচ্চুকে জানান, সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী দেশের অন্যান্য উপজেলায় মত তালা উপজেলায় কঠোর ভাবে পালন করা হচ্ছে লক ডাউন। লকডাউন বাস্তবায়নে ইউপি চেয়ারম্যানদ্বয়,পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ সার্বিক সহযোগিতা প্রয়োজন। কোথাও যদি কোন লকডাউন খারাপ পরিবেশ-পরিস্থিতি দেখেন তাহলে সাথে সাথে আমাকে অবহিত করবেন। আমি সেখানে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. রাজীব সরদার বলেন, বুধবার (৩০ জুন) পর্যন্ত ৪৮টি নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে ২৪ জনের এবং গত ৩০ দিনে ৫৪২ জনের নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ এসেছে ৩৪৬ জনের। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১ আইসিইউ বেড সহ ৫ আইসোলেশন বেড রেডি আছে। এবং ২৮ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার প্রস্তুত আছে।

সর্বশেষ নিউজ