vpn for bitcoin trading bitcoin trading challenge gravity guide pdf roger ver first invested in bitcoin date level 4 binary options binary options unmasked trading with bitcoin online bitcoin investing investing in cryptocurrencies binary options rss feed mispriced nadex binary option crypto trading mentor telegram crypto trading chat room trading binary options using candlesticks best reputable binary options brokers trading platform vs software crypto trading strategies reddit binary options trading options market world binary trading cumberland bitcoin trading if you had invested 1000 in bitcoin toronto star bitcoin investing easy profit binary option review binary option robot review what does sell mean in binary options csa binary options ban binary options expert advisor review bitcoin investing market price nadex scam binary options trading sites review forex com binary options indian binary options brokers zebpay suspended bitcoin trading forex vs binary options bitcoin trading ieea creating bitcoin trading bots that don't lose money bitcoin south africa investment best bitcoin trading analysis us binary options minimum deposit 1 how to be an expert in binary options reddit most advantageous place to invest in bitcoin best binary options list binary options uk ban binary option minimum trade 1 cryptocurrency trading platform how to get money to invest in bitcoin import crypto trading data into sheets for free can i invest my tsp into bitcoin trading platform at millennium trust best trading platform for stacked orders difference between trading and investing in bitcoin bitcoin trading glossary invest in bitcoin tdameritrade make a living from binary options us bitcoin trading platform is it worth it to invest in a whole bitcoin best bitcoin trading platform in nigeria lowest exchange trading fee bitcoin binance forex binary options brokers in usa if you invested in bitcoin is bitcoin code investing bot a scam your profit 247
১৪, এপ্রিল, ২০২১, বুধবার

সাধারণ বেডই এখন সোনার, হরিণ আইসিইউ নয়,

বিশেষ সংবাদদাতা

রাজধানীতে করোনা আক্রান্ত রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা প্রদান ক্রমেই দুরূহ হয়ে উঠছে। সম্প্রতি দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ‘ঠাঁই নাই’ অবস্থা বিরাজ করছে।

এতদিন মুমূর্ষু করোনা রোগীদের জন্য ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) বেড পাওয়া কঠিন হলেও ক্রমেই সাধারণ বেডই ‘সোনার হরিণ’ হয়ে উঠছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা গেছে, মার্চের প্রথম সপ্তাহে করোনা শনাক্তে নমুনা পরীক্ষায় প্রতিদিন মাত্র ৫০০ থেকে ৬০০ রোগী চিহ্নিত হলেও সম্প্রতি শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা ১২ থেকে ১৪ গুণ বেড়েছে। চারদিন ধরে প্রতিদিন গড়ে সাত হাজারেরও বেশি রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এ সময় প্রতিদিন মৃত্যু হচ্ছে ৬০ জনের বেশি।

প্রতিদিন করোনা রোগী সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে রাজধানীর সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সাধারণ বেড ও আইসিইউতে ভর্তি প্রয়োজন এমন রোগীর চাপ বাড়ছে।

বুধবার (৭ এপ্রিল) সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের সাধারণ ও আইসিইউ বেডের পরিসংখ্যান বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সরকারি হাসপাতালের ৮৯ শতাংশ সাধারণ বেডে ও ৯১ শতাংশ আইসিইউ বেডে রোগী ভর্তি রয়েছে। একইভাবে বেসরকারি হাসপাতালের ৮৮ শতাংশ সাধারণ বেডে এবং ৯৩ শতাংশ আইসিইউ বেডে রোগী ভর্তি রয়েছে।

স্বাস্থ্য ও রোগতত্ত্ব বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মানুষ করোনা স্বাস্থ্যবিধি শতভাগ মেনে না চললে সামনে কঠিন বিপদ। যেভাবে নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছে তার কয়েক শতাংশ রোগীকে প্রতিদিন হাসপাতালে ভর্তি করতে হলে হাসপাতালগুলো বেডের অভাবে রোগী ফিরিয়ে দিতে বাধ্য হবে। বেড ফাঁকা না থাকলে টাকা খরচ করেও চিকিৎসা পাওয়া যাবে না। সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় বেড সংখ্যা বৃদ্ধির চেষ্টা চলছে।

রাজধানীর ১০টি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের মধ্যে উত্তরার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের ১৬টি আইসিইউ শয্যার ১৬টিতে, ৫০০ শয্যার কুর্মিটোলা হাসপাতালের ১০টি শয্যার ১০টিতে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ২০টি শয্যার ১৯টিতে, শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের ১৬টির ১৪টিতে, সরকারি কর্মচারী হাসপাতালের ছয়টির সবগুলোতে, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও বার্ন ইউনিটের ২০টির ২০টিতেই, মুগদা জেনারেল হাসপাতালের ১৯ শয্যার ১৮টিতে, শহীদ সোহরাওয়ার্দীতে ১০টির চারটিতে, রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালের ১৫টির মধ্যে ১৪টিতে এবং বিএসএমএমইউ’র ২০টির ১৯টিতে রোগী ভর্তি রয়েছে।

অন্যদিকে, বেসরকারি হাসপাতালে ৩০৫টি আইসিইউ শয্যার রোগী ভর্তি রয়েছে ২৮৫টিতে। আইসিইউ শয্যা ফাঁকা রয়েছে মাত্র ২০টি।

ধানমন্ডির আনোয়ার খান মডার্ণ হাসপাতাল, আসগর আলী হাসপাতাল, ইবনে সিনা হাসপাতাল, ইমপালস হাসপাতাল, এ এম জেড হাসপাতাল এবং বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালের সবগুলো বেডে রোগী ভর্তি রয়েছে। এছাড়া স্কয়ার হাসপাতালের ১৯টির ১৬টিতে, ইউনাইটেড হাসপাতালের ১৫টির ১১টিতে এবং এভারকেয়ার হাসপাতালের ২১টির ১৯টিতে রোগী ভর্তি রয়েছে।

সর্বশেষ নিউজ