১৯, অক্টোবর, ২০২১, মঙ্গলবার

হাটে-বাজারে যানজট, নেই স্বাস্থ্যবিধির বালাই

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে আগামীকাল বুধবার (১৪ এপ্রিল) থেকে ৭ দিনের সর্বাত্মক লকডাউনে যাচ্ছে দেশ। এই সাত দিন জরুরি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়ার বিধিনিষেধ রয়েছে। তাই লডাউনের আগের দিন প্রয়োজনীয় কাজ আর বাজার-সদাই করতে সিলেট নগরে মানুষের ঢল নেমেছে।

মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) সকাল থেকেই নগরী ও আশেপাশের উপজেলা থেকে দলবেধে মানুষজন নগরে প্রবেশ করেন। কোথাও স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই। বেশিরভাগেরই মুখে নেই মাস্ক। দোকানপাট, ফুটপাত, মার্কেট কিংবা ব্যাংকগুলোতে মানুষের উপচে পড়া ভিড় লেগেছে। এতে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঝুঁকি আরও বেড়েছে।

নগরীর বন্দরবাজার, জিন্দাবাজার, আম্বরখানা এলাকায় চলমান লকডাউনেও ছিল যানজট। কোথাও কোথাও মানুষ দীর্ঘসময় যানজটে আটকে ছিলেন। এছাড়া নগরে ছিল গাড়ির সংকট। বেশিরভাগ গাড়ি ছিল মানুষে ঠাসা। অনেকেই দীর্ঘসময় অপেক্ষা করে গাড়ি না পেয়ে পায়ে হেটে গন্তব্য যাত্রা করেন।

এদিকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. সুলতানা রাজিয়া জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে আরও ১৩৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে মৃত্যু হয়েছে আরও দুই জনের। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮১ জন।

তিনি জানান, এনিয়ে সিলেট বিভাগের চার জেলায় মোট করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৮ হাজার ৯৫৭ জনে। এর মধ্যে সিলেট জেলায় ১১ হাজার ৯৭৭ জন, সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৬৪৩ জন, হবিগঞ্জ জেলায় ২ হাজার ১৭৫ জন ও মৌলভীবাজারে ২ হাজার ১৬২ জন।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত বিভাগের চার জেলা মিলে সুস্থ হয়ে ওঠেছেন ১৬ হাজার ৯৬৫। আর মারা গেছেন ৩০৫ জন। আর পুরো বিভাগে ২৬৯ জন করোনা আক্রান্ত রোগী বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সর্বশেষ নিউজ