২৭, অক্টোবর, ২০২১, বুধবার

হাত-পা বেঁধে ছাত্রকে মারধর, মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

বাগেরহাটের রামপালে না বলে বাড়িতে চলে যাওয়ার অপরাধে শুকুর শেখ (১১) নামে এক মাদরাসা ছাত্রকে বেঁধে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। পরে মারধরের অভিযোগে মাদরাসার শিক্ষক সৈয়দ মো. ওসমান গনিকে (৩০) গ্রেফতার করে পুলিশ।

রবিবার রামপাল উপজেলা সদরের শ্রীফলতলা উত্তর হাজি আরিফ কেরাতুল কোরান হাফেজিয়া মাদ্রাসার একটি কক্ষে আটকে রেখে এই ছাত্রকে মারধর করেন ওই শিক্ষক। রবিবার রাতে পুলিশ খবর পেয়ে ওই ছাত্রকে উদ্ধার করে।

পরে মাদ্রাসা ছাত্রের বাবা মনি শেখ বাদী হয়ে রামপাল থানায় মামলা করলে শিক্ষক সৈয়দ মো. ওসমান গনিকে (৩০) গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

আহত মাদ্রাসা ছাত্র শুকুর রামপাল উপজেলার গাববুনিয়া গ্রামের মনি শেখের ছেলে।

মাদ্রাসা শিক্ষক সৈয়দ ওসমান গনি শ্রীফলতলা উত্তর হাজি আরিফ কেরাতুল কোরান হাফেজিয়া মাদ্রাসার কোরান বিভাগের শিক্ষক। তিনি খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার ঝিনাইখালি গ্রামের সৈয়দ হাসান আলীর ছেলে।

মামলার বরাতে রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সামসুউদ্দিন এই প্রতিবেদককে বলেন, গত শনিবার সকালে রামপাল উপজেলা সদরের শ্রীফলতলা উত্তর হাজি আরিফ কেরাতুল কোরান হাফেজিয়া মাদ্রাসার নজরানা (দেখে দেখে শিখি) শাখার আবাসিক শিক্ষার্থী শুকুর শেখ মাদ্রাসার কাউকে কিছু না বলে বাড়িতে চলে যায়। পরদিন রবিবার সকালে সে মাদ্রাসায় ফিরে আসলে শিক্ষক ওসমান গনি একটি কক্ষে নিয়ে তার হাত ও পা বেঁধে লাঠি দিয়ে পেটান। এতে তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ফোলা দাগ হয়ে যায়।

স্থানীয়দের মাধ্যমে পুলিশ এই খবর জানতে পেরে সেখানে গিয়ে মাদ্রাসা ছাত্রকে উদ্ধার করে।

ওসি বলেন, আহত ছাত্রের বাবা এই ঘটনায় ওসমান গনির বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। সোমবার তাকে আমরা আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছি।

সর্বশেষ নিউজ