২৪, জানুয়ারী, ২০২১, রোববার

ঠাকুরগাঁওয়ে জমির বিরোধে সংঘর্ষ; আহত-২, গ্রেফতার-৩

কামরুল হাসান, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ে জমির বিরোধে উভয় পক্ষের সংঘর্ষে দুইজন গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন- খায়রুল ইসলাম (৬৫) ও জাহাঙ্গীর আলম (৩০)। আহতদের মধ্যে খায়রুল ইসলামকে মূমুর্ষ অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজে স্থানান্তর করা হয়েছে।
শুক্রবার (১ জানুয়ারী) বিকেলে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সালন্দর ইউনিয়নের দক্ষিণ সালন্দর নামক এলাকায় (পুলিশ লাইনের পিছনে) এ মারামারির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সালন্দর মৌজার জেএল নং-১০৭, এস.এস খতিয়ান ৪৭৮, দাগ নং-৭৭২৭ এর ৪৫ শতক জমির মধ্যে ২১ শতক জমি নিয়ে মৃত-কসিরউদ্দিনের ছেলে মিজানুর রহমানের সাথে শওকত আলীর ছেলে হীরা (৪৫) ও মৃত সামসুল হকের ছেলে আলী হোসেন (৩৮) গং এর সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। ঘটনার দিন বিকেলে হীরা ও ফাহিমসহ ২০-২৫ জন সংঘবদ্ধ হয়ে উক্ত জমি জবর দখলের উদ্দেশ্যে লাঠি-সোটা ও অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে ঘেরা-বেড়া দিতে থাকে।

এসময় পৈতৃক সুত্রে প্রাপ্ত ৮০ বছর ধরে ভোগ দখল করে আসা মিজানুর রহমানের পরিবারের সদস্যরা তাতে বাঁধা দিতে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এক পর্যায়ে হীরা ও আলী হোসেন গংদের ব্যবহৃত হাসুয়া, রামদা, লাঠিসোটা, রোহার রড ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে মিজানুরের চাচা খয়রুল ইসলাম ও ভাতিজা জাহাঙ্গীর গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তাদের আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে হামলাকারিরা প্রাণনাশের হুমকি দিতে দিতে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তাদের আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে খয়রুল ইসলামের অবস্থার অবস্থার অবনতি হলে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

পৈতৃক সুত্রে প্রাপ্ত জমির মালিক মিজানুর রহমান জানান, আমরা উল্লেখিত ২১ শতক জমি দীর্ঘ ৮০ বছর ধরে ভোগ দখল করে আসছি। মাঝে হীরা ও আলী হোসেন গং জমিটি তাদের নিজেদের বলে দাবি করছে এবং তা অবৈধভাবে দখলে নিতে সন্ত্রাসী ভাড়া করে আমার পরিবারের উপর পরিকল্পিতভাবে হামলা চালায়। তাদের হামলায় গুরুতর আহত হয়ে আমার চাচা খয়রুল ইসলাম বর্তমানে রংপুরে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে, আর সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ভাতিজা জাহাঙ্গীর। আমি এ হামলায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারসহ তাদের আইনের আওতায় আনার জোর দাবি জানাচ্ছি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় বাদীর দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে তিনজন আসামী গ্রেফতার করা হয়েছে এবং তাদের কোর্টে চালান করা হয়েছে, এছাড়াও বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

সর্বশেষ নিউজ