৫, ডিসেম্বর, ২০২২, সোমবার

স্বপ্ন

আশরাফ ইকবালঃ আমি স্বপ্ন দেখতে ভীষণ পছন্দ করি। আমার সাথে কেউ তার স্বপ্ন শেয়ার করলে পুলকিত হই। স্বপ্ন দেখতে পারে আমাদের মাঝে এমন লোক কমই আছে। স্বপ্ন দেখাতে পারে তার সংখ্যা আরও কম। স্বপ্ন দেখা আমাদের জন্মগত অধিকার, ভাগ্যের ব্যাপার নয়। স্বপ্ন এমনভাবে দেখতে হবে যাতে আমাদের ঘুম কেড়ে নেয়। স্বপ্ন দেখলেই চুরি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই আমরা স্বপ্ন কাউকে চুরি করতে দিব না। কোনো ভাবেই চুরি হতে দিবনা।

যারা স্বপ্ন চোর:-
১. পরিবার (স্ত্রী, মা-বাবা, ভাই-বোন)
২. বন্ধু-বান্ধব।
৩. কাজিন।
৪. পাড়া-প্রতিবেশী
৫. রুমমেট-ক্লাশমেট ও
৬. কলিগ।
যেভাবে স্বপ্ন চুরি হয়:-
যখনই আমরা কোন চিন্তা করি বা স্বপ্ন দেখি তখনই তারা বলতে শুরু করে পাগল হয়ে গেছে। এই সমস্ত পাগলামি বাদ দাও। অবিশ্বাস্য ব্যাপার। অসম্ভব এটি তোমার দ্বারা হবে না। জীবনে কি কম দেখেছি নাকি তুমি এটা পারবে। অনেকে হাসতে থাকে। টিজ করে। বলে অভিজ্ঞতায় আমার চুল পেকে গেছে। কত দেখলাম তোমার মতো। বলে রাখা ভালো। তার মতো পাকা চুল ভেড়ার গায়েও আছে। তাহলে কি ভেড়া অভিজ্ঞ নয়! স্বপ্ন দেখাটা পাগলামী নয়, না দেখাটাই পাগলামী। যারা স্বপ্ন দেখতে ভুলে গেছে তারাই পাগল।
স্বপ্ন না দেখার পরিণতি:-
১. কোনল জাতি বা দেশের উন্নতি ঘটে না।
২. হতাশা, বিপর্যয় ও দুর্দশা নেমে আসে।
৩. কর্মপ্রেরণা হারিয়ে ফেলে মানুষ।
৪. দরিদ্র হয়ে যায়।
৫. কোনো কাজেই সফলতা আসে না।
স্বপ্ন দেখার ফল:-
১. মন পবিত্র থাকে।
২. বেচে থাকার একটি কারণ তৈরি হয়।
৩. কাজে নামার উপায় তৈরি হয়।
৪. কাজে ক্লান্তি আসে না অর্থাৎ দীর্ঘদিন কাজ করার অনুপ্রেরণা আসে।
৫. আমাদের ভিশন ক্লিয়ার হয়।
৬. সফলতার ক্ষেত্রে বাধাগুলি দূর হয়।
৭. এনটি-বডি তৈরি হয়।
৮. সফলতা আসে আত্মবিশ্বাস থেকে। আত্মবিশ্বাস আসে অভিজ্ঞতা থেকে। অভিজ্ঞতা আসে অধ্যাবসায় থেকে। অধ্যাবসায় আসে লক্ষ্য থেকে। আর লক্ষ্য আসে স্বপ্ন থেকে। বুঝা গেল স্বপ্নই সফলতার কুড়েঘর।
স্বপ্ন বড় করার জন্য যা করা দরকার:-
১. ইমাজিনেশন করতে হবে।
২. মেডিটেশন করতে হবে।
৩. মটিভেশনাল বই পড়তে হবে।
৪. মটিভেশনাল ভিডিও দেখতে হবে।
৫. অভিজ্ঞ, জ্ঞানী এবং উচু ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন মানুষের সাথে মিশতে হবে।
৬. যারা বড় বড় স্বপ্ন দেখেন তাদের সাথে মিশতে হবে।
৭. যারা গোছালো, লক্ষ্য-উদ্দেশ্য আছে, পজিটিভ, ক্রিয়েটিভ, ও প্রো-একটিভ তাদের সাথে মিশতে হবে।
৮. বড় ও প্রশস্ত রাস্তায় যেতে হবে।
৯. সমুদ্রে যেতে হবে।
১০. পাহার পর্বতে যেতে হবে।
১১. বড় সমাবেশ, মিছিল, মেরাথন ট্রেনিং ও বড় হাট-বাজারে যেতে হবে।
১২. সেলিব্রেশন প্রোগ্রামে যেতে হবে।
১৩. ইনটারনেট সার্চ করতে হবে।
Dream বা স্বপ্ন কি?
Dreams are not a matter of chance but a matter of choice- David Copperfield.
D=Determination
R=Responsibility
E=Enthusiasm
A=Attainable
M=Measurable
স্বপ্নের প্রকারভেদ:-
স্বপ্ন ২ প্রকার। যথা-
১. ব্যক্তিগত স্বপ্ন
২. পেশাগত স্বপ্ন
১. ব্যক্তিগত স্বপ্ন:-
ক. ঋণ পরিশোধ।
খ. পরিবারের সাথে বেশি সময় দেয়া।
গ. ব্যক্তি স্বাধীনতা।
ঘ. সময়ের স্বাধিনতা।
ঙ. আর্থিক স্বাধিনতা।
চ. দেশ-বিদেশে ভ্রমণ।
ছ. মৃত্যুর পূর্বে এক লক্ষ বন্ধু তৈরি করা।
জ. ব্যক্তিত্বের বিকাশ।
ঝ. নেতৃত্ব, প্রভাব অর্থাৎ ক্ষমতা।
সম্মান।
ঞ. অপরকে সহযোগিতা।
ট. গাড়ি, বাড়ি ও নারী।
ঠ. সুখ-শান্তি।
ড. ট্রেইনার, মটিভেটর ও ঢ. নেটওয়ার্কার হওয়া।
পেশাগত স্বপ্ন:-
ক. ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার ও লয়ার হওয়া।
খ. সাংবাদিক ও সাহিত্যিক হওয়া।
গ. পুলিশ, র‌্যাব, বিডিয়ার, আর্মি ও গোয়েন্দা অফিসার হওয়া।
ঘ. শিক্ষক ও প্রফেসর হওয়া।
স্বপ্ন বাস্তবায়ন করার পদ্ধতি:-
১. আত্মবিশ্বাসের সহিত নিজের ২. স্বপ্ন নিয়ে কথা বলা।
৩. স্বপ্ন লিখে রাখতে হবে (ডাইরিতে, দেয়ালে, আয়নার সামনে, পড়ার টেবিলে ও বেডরুমে)।
৩. লক্ষ্য-উদ্দেশ্য ঠিক করতে হবে।
৪. ত্যাগী হতে হবে (অজুহাত, আলস্য, রাগ, ইগু, হীনমন্যতা, গল্প-গুজব, খেলা-ধুলা, মুভি দেখা ও বেশি ঘুম পরিত্যাগ করা)।
৫. প্রতিশ্রুতি, কাজ ও অর্জন করতে হবে।
৬. বিলাসবহুল গাড়ি, মনোরম বাড়ি দেখার পর বলতে হবে ক’দিন পর এরকম আমারও থাকবে।
৭. ভাল লাগার বিষয় ও কেন সফল হব তাও আমাদের লিখে রাখতে হবে।
৮. আমাদের ইচ্ছাগুলি নিয়ন্ত্রণ ও সময় অপচয় রোধ করতে হবে।
সর্বপরি আমাদের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য, জীবন গড়ার জন্য, সফলতা অর্জনের জন্য একটি অঙ্গিকার থাকতেই হবে। যে জীবনের প্রতি, নিজের কাজের প্রতি অঙ্গীকারবদ্ধ, তাকে আমরা বলি প্রতিশ্রুতিশীল। একজন প্রতিশ্রুতিশীল যুবকই পারে সাফল্যের স্বপ্ন দেখতে। কোনও কাজ নিষ্পত্তি করার দৃঢ় অঙ্গীকার নির্মাণ করতে হয় দু’টি স্তম্ভের উপর। সে দুটি হলো সততা ও বিজ্ঞতা। যদি আমাদের ক্ষতিও হয় তবু অঙ্গীকারে দৃঢ় থাকার নামই সততা। আর বিজ্ঞতা হচ্ছে, যেখানে ক্ষতি হবে সেই রকম বিষয়ে অঙ্গীকারবদ্ধ না হওয়া।
কোথায় ছিলাম বা কোথায় আছি সেটা বড় কথা নয়- কোথায় যেতে চাই সেটাই মূখ্য বিষয়।
তাহলে দেখব, আমরা সত্যি সত্যিই কিছু একটা করে ফেলেছি। কি করেছি তার চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কি হয়েছি! একজন সফলকাম লোকই স্বপ্ন ও লক্ষ্য নিধারণ করে।

সর্বশেষ নিউজ