৬, ডিসেম্বর, ২০২২, মঙ্গলবার

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার গোহালা ইউনিয়নের বিভিন্ন পেশায় গুণী ও কৃতি সন্তানদের উদ্যোগে ঈদ পুনর্মিলনী ও প্রীতি সম্মিলন

বিশেষ প্রতিনিধি: ক্রাইম ভিশন
গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার গোহালা ইউনিয়নের বিভিন্ন পেশায় গুণী ও কৃতি সন্তানদের উদ্যোগে ঈদ পুনর্মিলনী ও প্রীতি সম্মিলনের আয়োজন করা হয়েছে। গত ০৫/০৫/২০২২ইং তারিখ রোজ বৃহস্পতিবার বিকেলে গোহালা সেকেন্দার হায়াৎ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠানে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সঙ্গে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরকারি, বেসরকারি জাতীয় প্রতিষ্ঠানে কর্মরত এলাকার গুণী ও কৃতিসন্তানেরা অংশগ্রহণ করেন।
গোহালা সেকেন্দার হায়াৎ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই প্রীতি সম্মিলনে প্রধান অতিথি ছিলেন সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠক এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরিচালক চিত্রশিল্পী আশরাফুল আলম পপলু। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গোহালা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অলিয়ার খান।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর পরিচালনা কমিটির সদস্য আশরাফুল আলম পপলু বলেন, বর্তমানে কর্মব্যস্ত জীবনে পারস্পরিক সংযোগ ও সম্পর্ক বৃদ্ধি এই অনুষ্ঠানের অন্যতম লক্ষ্য; যা একটি মানবিক সমাজ গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এলাকার গুণী ও মেধাবীদের নিয়ে এই ধরনের ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠান এই প্রথম; যা এলাকার মানুষের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ সৃষ্টি করেছে। নতুন প্রজন্মের জন্য এরকম অনুষ্ঠান বার বার আয়োজন করা প্রয়োজন।
অপরদিকে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি আশরাফুল আলম পপলুকে উদ্দেশ্য করে অন্যান্য বক্তারা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর সততা, ত্যাগ ও আদর্শের রাজনীতির এক উজ্জ্বল উদাহরণ আশরাফুল আলম পপলু। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা প্রতিষ্ঠায় প্রবল প্রতিকূল পরিবেশের মধ্য দিয়েও তিনি সফলভাবে কাজ করেছেন, করে যাচ্ছেন এবং ভবিষ্যতে ও করে যাবেন। দুঃসময়ের সফল রাজনীতিক যার ত্যাগ, সততা ও রাজনৈতিক আদর্শ মানুষকে প্রভাবিত করে, উদ্বুদ্ধ করে। এলাকার মানুষ চিকিৎসাসেবা থেকে শুরু করে যেকোনো সময় যেকোনো প্রয়োজনে তাঁকে কাছে পায়। তাঁর মতো সৎ, নির্মোহ, ত্যাগী, আদর্শ, ব্যক্তিত্বসম্পন্ন রাজনীতিক বিরল।

পবিত্র কোরআন ও গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা কাজী জাকির হোসেন। স্বাগত বক্তব্য দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শেখ গোলাম মাহমুদ। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন গোহালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক টুটুল বিশ্বাস। আরও বক্তব্য দেন ঢাকা বারের আইনজীবী শেখ মোহাম্মদ মনির উদ্দীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র অধ্যাপক আব্দুস সালাম, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের (১৯৯৪—৯৫) সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক মোল্লা খোকন ও প্রকৌশলী জিয়াউল হক মোল্লা প্রমুখ।
জনাব ওমর ফারুক মোল্লা তার বক্তব্যে বলেন— জনাব আশরাফুল আলম পপলু ভাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগের দু:সময়ের রাজপথের লড়াকু সৈনিক আমাদের ইউনিয়নেরই একজন গুণী পরোপকারী ও সমাজ সেবক হিসেবে পেয়ে আমরা নিজেদেরকে ধন্য মনে করছি। তাই মানুষ মানুষের মধ্যে বন্ধন সুদৃঢ় রাখার জন্য, একে অপরের বিপদে আপদে পাশে থাকার জন্য এবং সামাজিক, অর্থনৈতিক ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠার জন্য আমাদের গুরত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে সামনে এগিয়ে যেতে চাই সেই সাথে জনাব আশরাফুল আলম পপলু ভাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি এরকম একটা অনুষ্ঠান আমাদের উপহার দেওয়ার জন্য।
প্রীতি সম্মিলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আবু বক্কর শরীফ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অহিদুল আলম ডাবলু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব শেখ ইকবাল, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গীর আলম, প্রকৌশলী শাহীন গাজী, গোপালগঞ্জ জেলা বারের সাবেক সহ—সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট মিয়া আসাদুজ্জামান আসাদ, বিশিষ্ট পরিবহন ব্যবসায়ী সাখাওয়াত হোসেন মিন্টু, বিশ্বজিৎ কুন্ডু, মিজানুর রহমান মোল্লা, আব্দুল গনি শেখ, রমজান আলীসহ আরও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

সর্বশেষ নিউজ