৮, ডিসেম্বর, ২০২২, বৃহস্পতিবার

খানসামায় বিএনপির দুই গ্রুপের সংঘর্ষে পণ্ড বিক্ষোভ সমাবেশ

মো. আজিজার রহমান, দিনাজপুর প্রতিনিধি: জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ সহ সকল নিত্য-প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের চরম উর্দ্ধগতি এবং ভোলা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা আব্দুর রহিম ও ছাত্রদলের সভাপতি নূর আলম হত্যার প্রতিবাদে খানসামা উপজেলা বিএনপির প্রায় ৮ বছর পর ডাকা বিক্ষোভ সমাবেশে সাবেক এমপি আখতারুজ্জামান মিয়া ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি শিল্পপতি মোঃ হাফিজুর রহমান সরকার দুই গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয় । এতে পণ্ড হয়ে যায় বিক্ষোভ সমাবেশ।

গত শনিবার (০৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ ঘটিকায় দিনাজপুরের খানসামায় পাকেরহাটের বাইপাস সড়কে মিজানুর চৌধুরীর চাতালে উপজেলা বিএনপি ও সকল সহযোগী অঙ্গ সংগঠন সমূহের আয়োজনে বিক্ষোভ সমাবেশের শেষের মুহূর্তে সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালীন ছাত্রদলের আহ্বায়ক আব্দুর রউফ এক কর্মীকে ফেস্টুন নামানোর কথা বলে। ওই কর্মী ফেস্টুন না নামালে একটি থাপ্পড় মারে এতে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের আঘাতে আহত হন তিনি। এতে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে ছাত্রদল ও বিএনপির একাধিক কর্মী আহত হয়। পরে সিনিয়র নেতৃবৃন্দ কর্মীদের শান্ত ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

আহত ব্যাক্তিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমিনুল হক চৌধুরী বিএসসি’র সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য আখতারুজ্জামান মিয়া ও প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার আহমেদ কচি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল হালিম, সাবেক সহ-সভাপতি শিল্পপতি হাফিজুর রহমান সরকার, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান চৌধুরী, যুগ্ম আহ্বায়ক ও ভাবকী ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল আলম তুহিন, সদস্য শফিকুল ইসলাম, খামারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু বকর সিদ্দিক চৌধুরী, গোয়ালডিহি ইউপি চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন লিটন, জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য শরিফুল ইসলাম প্রধানসহ উপজেলা বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, কৃষকদল ও ইউনিয়ন ও উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা।

এ সময় বক্তারা বলেন, এই সরকার নিশি রাতের সরকার। ভোলায় জীবন দিয়েছে, নারায়ণগঞ্জে জীবন দিয়েছে! আপনারা আগামীতে জীবন দিতে প্রস্তুত তো? দেশের মানুষ আজ ভাল নেই। বাঁচাও দেশ খালেদার নির্দেশ। আমরাও খেলোয়াড় খেলার জন্য আমরাও প্রস্তুত।
মো. আজিজার রহমান, দিনাজপুর প্রতিনিধি;
জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ সহ সকল নিত্য-প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের চরম উর্দ্ধগতি এবং ভোলা জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলনেতা আব্দুর রহিম ও ছাত্রদলের সভাপতি নূর আলম হত্যার প্রতিবাদে খানসামা উপজেলা বিএনপির প্রায় ৮ বছর পর ডাকা বিক্ষোভ সমাবেশে সাবেক এমপি আখতারুজ্জামান মিয়া ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি শিল্পপতি মোঃ হাফিজুর রহমান সরকার দুই গ্রুপের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয় । এতে পণ্ড হয়ে যায় বিক্ষোভ সমাবেশ।

গত শনিবার (০৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৩ ঘটিকায় দিনাজপুরের খানসামায় পাকেরহাটের বাইপাস সড়কে মিজানুর চৌধুরীর চাতালে উপজেলা বিএনপি ও সকল সহযোগী অঙ্গ সংগঠন সমূহের আয়োজনে বিক্ষোভ সমাবেশের শেষের মুহূর্তে সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালীন ছাত্রদলের আহ্বায়ক আব্দুর রউফ এক কর্মীকে ফেস্টুন নামানোর কথা বলে। ওই কর্মী ফেস্টুন না নামালে একটি থাপ্পড় মারে এতে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের আঘাতে আহত হন তিনি। এতে সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে ছাত্রদল ও বিএনপির একাধিক কর্মী আহত হয়। পরে সিনিয়র নেতৃবৃন্দ কর্মীদের শান্ত ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে।

আহত ব্যাক্তিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আমিনুল হক চৌধুরী বিএসসি’র সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য আখতারুজ্জামান মিয়া ও প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার আহমেদ কচি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল হালিম, সাবেক সহ-সভাপতি শিল্পপতি হাফিজুর রহমান সরকার, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান চৌধুরী, যুগ্ম আহ্বায়ক ও ভাবকী ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল আলম তুহিন, সদস্য শফিকুল ইসলাম, খামারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু বকর সিদ্দিক চৌধুরী, গোয়ালডিহি ইউপি চেয়ারম্যান সাখাওয়াত হোসেন লিটন, জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য শরিফুল ইসলাম প্রধানসহ উপজেলা বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, কৃষকদল ও ইউনিয়ন ও উপজেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা।

এ সময় বক্তারা বলেন, এই সরকার নিশি রাতের সরকার। ভোলায় জীবন দিয়েছে, নারায়ণগঞ্জে জীবন দিয়েছে! আপনারা আগামীতে জীবন দিতে প্রস্তুত তো? দেশের মানুষ আজ ভাল নেই। বাঁচাও দেশ খালেদার নির্দেশ। আমরাও খেলোয়াড় খেলার জন্য আমরাও প্রস্তুত।

সর্বশেষ নিউজ