৫, ডিসেম্বর, ২০২২, সোমবার

সড়ক নির্মাণে ইটের বদলে এ যেন জৈব সার!

বগুড়ার নন্দীগ্রামে গ্রামীণ সড়কে ইটের গুড়া ও নিম্নমানের সামগ্রী দিতে দেখা গেছে। এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। ইটের খোয়ায় আঙুল দিয়ে চেপে ধরলে মাটির মতো গুড়া হয়ে যায়। সরেজমিনে গিয়ে উপজেলার ভাটরা ইউনিয়নের ভাটরা-নাগড়া-খরনা দেড় কিলোমিটার নতুন সড়কের কার্পেটিং কাজে ইটের খোয়ার সঙ্গে খুবই নিম্নমানের ও পরিত্যক্ত নরম ইটের গুড়া-রাবিশ মিশ্রণ দিতে দেখা যায়। জনগণের প্রতিবাদ ও প্রশ্নের মুখে কাজ বন্ধ করে চলে গেছে ঠিকাদারের লোকজন।

এ রিপোর্ট সংক্রান্তে স্থানীয়দের সাথে কথা হয়। তারা অনিয়মের অভিযোগ করে বলেন, ইটের খোয়ার সঙ্গে এ যেন জৈব সার মিশিয়ে দিচ্ছে। ইটের খোয়া মাটির মতো গুড়া হয়ে যায়। এটা কি বালু আর ইটের গুড়ার সড়ক হচ্ছে?। সরকারি কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের নজরদারি না থাকায় ঠিকাদারের লোকজন অনিয়মের মাধ্যমে নিম্নমানের কাজ করছে। সড়ক নির্মাণের সামগ্রী সম্পর্কে স্থানীয়রা কাগজ দেখতে চাইলে কেউ দেখায় না। ঠিকাদারের লোকজন তাদের জানিয়েছে, টেন্ডারে যা আছে, তেমনি কাজ হচ্ছে।

উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় সুত্র জানায়, ভাটরা-নাগড়া-খরনা ১ কিলো ৫০০ মিটার গ্রামীণ সড়কটি এলজিইডি বগুড়া থেকে ২০২১-২০২২ অর্থবছরে টেন্ডার পায় মেসার্স শিমুল এন্টারপ্রাইজ বগুড়ার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। সড়ক নির্মাণে চুক্তি হয়েছে ১ কোটি ১৮ লাখ ১৫ হাজার ৫০৯ টাকা।

নাগড়া গ্রামের কয়েকজন ব্যক্তি বলেন, ইটের গুড়া ও নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে নতুন রাস্তার কাজ করা হচ্ছে। ঠিকাদারের লোকজনের কাছে নির্মাণ সামগ্রী বিষয়ে কাগজ দেখতে চাইলে তারা দেখায়নি। কাজ অসম্পন্ন রেখেই শ্রমিক নিয়ে চলে গেছে।

এ ব্যাপারে শিমুল এন্টারপ্রাইজ ঠিকাদারের প্রতিনিধি জমজম ট্রেডার্সের সত্বাধিকারি এহতেশামুল হক বলেন, কাজ করার মতো টাকা নেই। সেজন্য কাজ বন্ধ করা হয়েছে। নিম্নমানের সামগ্রী ও অনিয়মের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি ব্যস্ত আছেন জানিয়ে ফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেন।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা প্রকৌশলী শা-রিদ শাহনেওয়াজ বলেন, গ্রামীণ সড়কের কাজে যেখানে সমস্যা বা অনিয়ম ছিল, সেগুলো পুনরায় ভালো করে কাজ করানো হয়েছে। ঠিকাদার কাজ বন্ধ রাখলে সেটারও ব্যবস্থা আছে।

সর্বশেষ নিউজ