১৬, জুলাই, ২০২৪, মঙ্গলবার
     

ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়েও সত্য বলবো: মেয়র আইভী

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, ‘সাদাকে সাদা ও কালোকে কালো বলতে হবে। আত্মসমর্পণ শুধু আল্লাহর কাছে করা করা উচিত। আমরা কি ভয় পাই না কি টাকার কাছে নতজানু? আমার মনে হয়, আমরা খুব বেশি ভয় পাই না। আমি চাইবো, বীর মুক্তিযোদ্ধারাও যেন ভয় না পেয়ে আমার পাশে এসে দাঁড়ান।

বুধবার (১১ মে) বিকেলে নগরভবনের সম্মেলন কক্ষে সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সামগ্রী প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্যে সিটি মেয়র বলেন, ‘আমি আপনাদের পাশে থাকতে চাই। তবে সত্যের সাথে আপনাদের থাকতে হবে। সাহস করে আপনারা সত্য বলতে না পারলে ভবিষ্যতের শিশুরা কী শিখবে ?

বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিনের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড ও মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন-শাহ্ শরীফুন নেছা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এই আয়োজন করা হয়। নারায়ণগঞ্জের হেরিটেজ স্কুল তাদের সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে বিনা বেতনে সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রদান করে। এসব শিক্ষার্থীদের মধ্যে ওই উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এ সময় মেয়র আইভী আরো বলেন, আলী আহাম্মদ চুনকা এই শহরে অনেক কাজ করেছেন। কিন্তু তার নাম অনেকে নেন না। শিশুদের জন্য শিশুবাগ ও কলরব স্কুল তিনি করেছিলেন। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন থেকে ইতোমধ্যে তিন-চারটা স্কুল চালাচ্ছে। আরও কাজ করছি।

পথশিশুদের জন্য চাষাঢ়ায় যে স্কুলটি রয়েছে সেটিও সিটি করপোরেশনের জায়গায়। আমরা সেখানে আরও উন্নত সুবিধা দিতে চাই। সুইপার কলোনীর স্কুলটিও আমরা দেখাশোনা করি এবং সেখানে মিড-ডে মিল প্রদান করি। আমি সাধারণ মানুষের পাশে থাকতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। সাধারণ মানুষের সাথেই আমার চলাফেরা। সত্যের পাশে থাকতে চাই। এর জন্য আমরা মৃত্যু হলে হবে। আমি ফাঁসির মঞ্চে দাঁড়িয়েও সত্য বলবো।

তিনি আরো বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা অত্যন্ত নিগৃহীত ছিল। শেখ হাসিনার সরকার এসে বিভিন্নভাবে সম্মানিত করার চেষ্টা করেছে। সড়কের নাম করে দিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা সড়ক। মুক্তিযোদ্ধাদের কবরস্থান চিহ্নিত করার জন্য সরকার কাজ করছে। কিন্তু সব কাজ তো প্রধানমন্ত্রী করবেন না।

আমরা যারা জনপ্রতিনিধি আছি তারাও অনেক সময় সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করি না। যাদের উপর দায়িত্ব অর্পিত থাকে তারাও অনেক সময় দায়িত্ব পালন করেন না। মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন অনেক কাজ করেছে। তাদের ট্যাক্স মওকুফ করেছে। তাদের নিয়ে একটি শর্টফিল্মও করেছিলাম। কবরস্থানে দশ শতাংশ জায়গা করে দিয়েছি। পানির বিলও মওকুফ করে দেবো। যতটুকু পারি ততটুকু সুযোগ আমি করে দেবো।

নাসিক মেয়র বলেন, বাচ্চাদের আমি সবসময় পছন্দ করি। বাচ্চারাও খুব সাড়া দেয়। অল্প অল্প করে আমরা অনেক কিছু করছি। সমাজে অনেক বিত্তবান মানুষ আছে যারা সবসময় এগিয়ে আসতে চায় না। কোনো উপলক্ষকে কেন্দ্র করে হয়তো সাংবাদিক ডেকে তারা অনেক কিছু করেন। কিন্তু সমাজের বিভিন্ন স্তরে অনেক ধরনের সমস্যা রয়েছে, সেগুলো অনেকে বুঝতেও পারি না। আমি সবসময় অসহায় মানুষের পাশে থাকতে চাই।

নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক শরীফ উদ্দিন সবুজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন দৈনিক সংবাদের চীফ রিপোর্টার সালাম জুবায়ের, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার অ্যাডভোকেট নুরুল হুদা, সদর উপজেলা কমান্ডার শাহজাহান ভূঁইয়া জুলহাস, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সদস্যসচিব ইঞ্জিনিয়ার রাজিব, নাসিক কাউন্সিলর মনিরুজ্জামান মনির, হেরিটেজ স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল দেলোয়ার হোসেন কাজল, মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন-শাহ্ শরীফুন নেছা ফাউন্ডেশনের অন্যতম সমন্বয়কারী নিলা আহমেদ নিশি, শিরিন সুলতানা, সদস্য নিখিল হোসেন আমন, আহমেদ অনন্ত শাহ্, তন্ময় রওনক, হেরিটেজ স্কুলের শিক্ষিকা সানজিদা ইয়াসমিন, শায়লা বর্ণা, সন্তান কমান্ডের সদস্য ডা. ওয়াজেদুর রহমান, জহিরুল ইসলাম, সাঈফ রেজা সুমন, লেখক সাব্বির খান, আলোকচিত্র শিল্পী শওকত মিথুন প্রমুখ।-বিডি২৪লাইভ

               

সর্বশেষ নিউজ