১৫, জুলাই, ২০২৪, সোমবার
     

শ্রীনগরে রাতের আধারে প্রবাসীর নির্মাণাধীন মার্কেটের জায়গা দখলের চেষ্টা

মোহন মোড়ল, শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি: শ্রীনগর উপজেলার ভাগ্যকুল ইউনিয়নের আল-আমিন বাজার সংলগ্ন প্রবাসীর নির্মাণাধীন মার্কেটের জায়গা দখলের চেষ্টা করার অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার আল-আমিন বাজার বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন ওই জায়গায় অবৈধভাবে বালু ভরাট শুরু করে স্থানীয় ইউপি সদস্য নুরুল আমিন মোড়ল ও তার ভাড়াটিয়া লোকজন। খবর পেয়ে জায়গার মালিক সৌদি প্রবাসী মো. হাবিবুর রহমান মাসুদ ঘটনাস্থলে এসে বাঁধা প্রদান করলে দখলকারীরা মারমুখী হয়ে উঠে। পরে পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে আসলে দখলকারীরা সটকে পড়ে।

এ ঘটনায় হাবিবুর রহমান মাসুদ কামারগাঁও এলাকার ইউপি সদস্য নুরুল আলম মোড়ল (৪০), ফরেস মোড়ল (৬০), হারুন মোড়ল (৩৫), সালাউদ্দিন মোড়ল (৩৫), সেলিম মোড়ল (২৩), রাফি মোড়ল (২৩), বিপুল মোড়ল (৩৫), রিফাত মোড়ল (৩০), বারেক মোড়ল (৬০), শুভ (২৩) বাবু (২৬) ও বাঘড়া এলাকার রাজা খাসহ বহিরাগত অজ্ঞাত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে শ্রীনগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।
অনুসন্ধানে জানা যায়, কামারগাঁও মৌজায় খতিয়ান নং ৮৭৯ ও আরএস ১৫৩নং দাগে মোট ৮০ শতাংশ সম্পত্তির মধ্যে ২৩ শতাংশ জমি ক্রয়সূত্রে মালিক হাবিবুর রহমান মাসুদগং। দলিন নং-৩৫৮১।

এলাকাবাসী জানায়, এলাকার চিহ্নিত দখলবাজ ইউপি সদস্য নুরুল আমিন মোল্লার নেতৃত্বে ও যুবলীগ নেতা শাহিন হত্যা মামলার অন্যতম আসামী রাজা খা’র সহযোগীতায় বহিরাগত শতাধিক লোকজন আল-আমিন বাজার সংলগ্ন সড়কের দক্ষিণ পাশে নির্মাণাধীন হাজী মালেক ফকির প্লাজা নামক মার্কেটের পাইলিং করা জায়গাটি দখলের পায়তারা শুরু করা হয়। রাতের আধারে ওই জায়গাটি হঠাৎ মাটি ভরাট শুরু করে। জায়গার মালিক পক্ষ এসে বাঁধা প্রদান করলে দখলকারীরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এনিয়ে এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। কিছুক্ষণ পর র‌্যাব-১০ ও শ্রীনগর থানা পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে আসলে দখলকারীরা পালিয়ে যায়। নির্মাণাধীন ওই মার্কেটের স্বত্বাধিকারী মো. হাবিবুর রহমান মাসুদ বলেন, এলাকার চিহ্নিত দখলবাজ ইউপি সদস্য নুরুল আমিন মোড়ল ও যুবলীগ নেতা শাহিন হত্যা মামলার আসামী ভাড়াতে বাঘড়ার রাজা খা তার লোকজন নিয়ে আমাদের মালিকানা সম্পত্তি দখলের চেষ্টা করে। এতে বাঁধা দিলে দখলকারীরা মারমুখী হয়ে উঠে ও আমাকে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে। উপায় না পেয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করি।

এ বিষয়ে জানতে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও রাজা খা মোবাইল ফোন রিসিভ করেননি।
ভাগ্যকুল ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ড সদস্য নুরুল আমিন মোল্লার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে আমি ছিলাম না। আমি অসুস্থ তাই বাড়িতে ছিলাম। তবে লোকমুখে ঘটনার বিস্তারিত শুনেছি।
এ ব্যাপারে শ্রীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আমিনুল ইসলাম জানান, আভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

               

সর্বশেষ নিউজ