১৫, জুলাই, ২০২৪, সোমবার
     

নড়িয়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ॥ রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে শরীয়তপুরের নড়িয়া পৌরসভার স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক নেতাকে হাতুড়ি ও রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে আওয়ামীলীগের এক নেতা ও তার লোকজনের বিরুদ্ধে। নিহতের নাম মামুন খান (৩২)। তিনি নড়িয়া পৌরসভার বাড়ই পাড়া গ্রামের আবদুল ছালাম খানের ছেলে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আজ বুধবার রাত ৮টার দিকে নড়িয়া পৌরসভার পূর্ব মাথায় গালর্স স্কুলের কাছে এই ঘটনা ঘটে।
নিহতের মামা নড়িয়া পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর আলোয়ার হোসেন মল্লিক ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, তার ভাগীনা নড়িয়া পৌরসভার স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রচার সম্পাদক মামুন খানের সঙ্গে নড়িয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোকলেছ বেপারীর সঙ্গে বিরোধ চলে আসছে। ওই ঘটনার জের ধরে আজ বুধবার রাত ৮টার দিকে নড়িয়া পৌরসভার গালর্স স্কুলে সামন দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় নড়িয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোকলেছ বেপারীর ও তার লোকজন পিছর থেকে তার মাথায় হাতুরী ও লোহার রড় দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে পিটিয়ে মারান্তক জখম করেন তারা পুলিয়ে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত্যু ঘোষনা করে।

নিহতের মা রাজিয়া বেগম বলেন, মোকলেছের সঙ্গে আমার ছেলে রাজনৈতিক বিরোধ ছিল। এ ঘটনার জের ধরে আজ নড়িয়া পৌরসভার গালস স্কুলের সামন দিয়ে যাওয়া সময় তারা আমার ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে হাতুরী দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে। মোকলেছে ও তার সন্ত্রাসীরা। আমি ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।
নিহতের স্ত্রী তানিয়া বলেন, আমার নিরপরাধ স্বামীকে হাতুরী দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে। আমি এর বিচার চাই।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম বলেন, নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

               

সর্বশেষ নিউজ