২৯, মে, ২০২৪, বুধবার
     

মানিকগঞ্জে প্রেমিককে ভিডিও কলে রেখে ছাত্রীর আত্মহত্যা

শফিকুল ইসলাম, সুমন, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি:
মানিকগঞ্জে প্রেমিককে লাইভে রেখে বিলকিছ আক্তার (২৩) নমের এক কলেজ ছত্রী আত্মহত্যা করেছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
বুধবার (৪ অক্টোবর) সকালে মানিকগঞ্জ পৌরসভার বৈতরা এলাকার মোঃ সুমন হোসেন এর বাড়ি থেকে কলেজ ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করেন পুলিশ। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার।
নিহত কলেজ ছাত্রীর বাড়ি মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলা সিংজুরী ইউনিয়নের হাটকুড়িয়া গ্রামে। সে এই গ্রামের মোঃ বাবু মিয়ার মেয়ে। বিলকিছের জন্মের কয়েক বছর পরে তার বাবা, মার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। পরে প্রয়া ১০ বছর ধরে বৈতরা সুমন হোসেন এর বাড়িতে ভাড়া থাকতেন তারা। ভাড়া বাড়ি থেকে মেয়েকে বিয়ে দিয়ে প্রবাসে জান বিলকিছ এর মা। বর্তমানে সে প্রবাসেই রয়েছেন।
বাড়ির মালিক মোঃ সুমন হোসেন জানান, প্রায় ৪ বছর আগে সদর উপজেলার জাগীর ইউনিয়নের মেঘশিমুল গ্রামের সোহেলের সাথে বিয়ে হয় বিলকিছের। বিলকিছের মা বিদেশ থাকলেও ঘর ছারে নাই। সে প্রতিমাসেই ভাড়া দিতেন। দেড় মাস আগে এইচ এস সি পরিক্ষা দেওয়ার জন্য বাড়া বাড়িতে আসেন বিলকিছ। এখান থেকেই পরিক্ষা দিচ্ছিলেন। এর মাঝে ১০ থেকে ১৫ দিন আগে তার স্বামীর বাড়ির পরিবারের লোক জন তাকে নিতে আসছিল। তখন বিলকিছ আর স্বামীর বাড়িতে যাবেন না বলে জানিয়ে দেন। এবং বিবাহ বিছেদ এর কথাও বলেন। তার সাথে অন্য এক ছেলের সম্পর্ক আছে বলে জানান তিনি।
স্থানিয়রা জানান, বিলকিছের সাথে অন্য এক ছেলের সম্পর্ক ছিলো সে জন্য স্বামীর সংসার ভেঙ্গে দেতি চায়ছিলো। গত রাতে কোন এক সময় বিলকিছ ঘরের ফেনের রডের সাথে উন্না পেছিয়ে আত্মহত্যা করে। আজ সকালে যখন তার লাশ উদ্ধার করা হয় তখন তার মোবাইল ফোনে ভিডিও কলছিল। সে জন্য স্থনিয়রা সন্দেহ করছেন তার প্রেমিকার সাথে ঝগড়া করে আত্ম হত্যা করতে পারে।
এ বিষয়ে সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) মাসুদুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছি। এবং তার ফোনও আমাদের হেফাজতে নিয়েছি।
সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলার ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।

               

সর্বশেষ নিউজ