২৯, অক্টোবর, ২০২০, বৃহস্পতিবার

দুর্নীতির একটি অভিযোগের তদন্ত শুরু হওয়ায় স্পেনের সাবেক রাজা হুয়ান কার্লোস দেশ ত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। স্পেনের রাজপ্রাসাদ থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে। জানা গেছে, ৮২ বছর বয়সী কার্লোস দেশ ছাড়ার সিদ্ধান্তটি এক চিঠির মাধ্যমে তার ছেলে ফিলিপেকে জানিয়েছেন। ছয় বছর আগে ছেলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন কার্লোস। সাবেক এই রাজা জানিয়েছেন, তদন্তের জন্য যদি কথা বলার প্রয়োজন হয় তাহলে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে। সৌদি আরবে একটি দ্রুত গতির রেল প্রকল্প নির্মাণের চুক্তিতে কার্লোসের বিরুদ্ধে জুন মাসে দুর্নীতি অভিযোগ তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছিল স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট। সাবেক এই রাজা এখন কোথায় বসবাস করবেন সেটি এখনও পরিষ্কার নয়। তবে স্পেনের কিছু সংবাদমাধ্যম বলছে, কার্লোস এখন দেশে নেই। দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে এভাবে দেশ ছেড়ে যাওয়া একজন সাবেক রাজার জন্য খুবই অপমানজনক। গত ১৯৭৫ সালে স্পেনের স্বৈরশাসক জেনারেল ফ্রাঙ্কোর মৃত্যুর পর দেশটিকে গণতন্ত্রের পথে নিয়ে আসার ক্ষেত্রে হুয়ান কার্লোস বেশ দক্ষতার সঙ্গে নেতৃত্ব দিয়েছেন। রাজ সিংহাসনে ৪০ বছর থাকার পর ২০১৪ সালে তিনি ছেলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন। ছেলের কাছে লেখা চিঠিতে সাবেক এই রাজা বলেন, ‘স্পেনের জনগণ, প্রতিষ্ঠান এবং রাজা হিসেবে তুমি যাতে ভালো কাজ করতে পারো, সেজন্য আমি এখন দেশ ছেড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’ সৌদি আরবের মক্কা-মদিনা রেল প্রকল্পের জন্য ৬০০ কোটি ডলারের কাজ পায় স্পেনের একটি কোম্পানি। এরপর ২০১৪ সালে ক্ষমতা হস্তান্তরের পর সৌদি প্রকল্পের সাথে হুয়ান কার্লোসের দুনীতির সংশ্লিষ্টতা প্রমাণের উদ্যোগ নেয় দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। অবশ্য তিনি যতক্ষণ পর্যন্ত রাজা ছিলেন, ততক্ষণ পর্যন্ত তার দায়মুক্তি ছিল। এজন্য এর আগে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এই তদন্ত সুইজারল্যান্ডের ব্যাংকগুলোতেও গড়িয়েছে। স্পেনের দুর্নীতি-বিরোধী কর্মকর্তারা সন্দেহ করেন, সাবেক এই রাজার কিছু অঘোষিত অর্থ সুইজারল্যান্ডের ব্যাংকে গচ্ছিত রয়েছে। স্পেনের সরকার বলেছে, ‘বিচার সবার জন্য সমান’ এবং তদন্তে সরকার কোনো ধরনের ‘হস্তক্ষেপ’ করবে না। সূত্র: বিবিসি বাংলা

দেশে মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ২৩৪ জনে।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১ হাজার ৯১৮ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনা শনাক্ত হলো মোট ২ লাখ ৪৪ হাজার ২০ জনের।

মঙ্গলবার (৪ আগস্ট) মহাখালী থেকে নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৯৫৫ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৩৯ হাজার ৮৬০ জন। সারা দেশ থেকে ৮ হাজার ১২৩টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আগের নমুনাসহ ৭ হাজার ৭১২টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ পর্যন্ত মোট ১২ লাখ ১ হাজার ২৫৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

সোমবার (৩ আগস্ট) করোনাভাইরাস বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের বুলেটিনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে মারা গেছেন আরও ৩০ জন। একই সময়ে এ ভাইরাস শনাক্ত হয় আরও ১৩৫৬ জনের দেহে। ২৪ ঘণ্টায় চার হাজার ২৪৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও এক হাজার ৬৬ জন। এই সময়ে নমুনা পরীক্ষার ৩১ দশমিক ৯১ শতাংশের দেহে করোনা শনাক্ত হয়।

গোটা বিশ্বকে মৃত্যুপুরীতে পরিণত করেছে করোনাভাইরাস। চীনের উহান শহর থেকে গত ডিসেম্বরে ছড়ানো ভাইরাসটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় এক কোটি ৮৫ লাখ। মৃতের সংখ্যা ছয় লাখ ৯৭ হাজারের বেশি।

তবে সুস্থ রোগীর সংখ্যা প্রায় এক কোটি ১৭ লাখ। বাংলাদেশে করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। আর এতে প্রথম মৃত্যু হয় ১৮ মার্চ।

সর্বশেষ নিউজ