৩১, অক্টোবর, ২০২০, শনিবার

কুমারখালীতে স্কুল ছাত্রকে হত্যার অভিযোগ, গ্রেফতার ২

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলায় তানভির ইসালম (১৬) নামের এক স্কুল ছাত্রকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। এমন অভিযোগ করে শুক্রবার সকালে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহত স্কুল ছাত্রের মা নিলা তারা।মামলা নং ০৮,তাং ০৭/০৮/২০২০। এঘটনায় অভিযান চালিয়ে নাইম (১৫) ও সুমন (১৬) নামের দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

নিহত তানভির তেবাড়িয়ার ওবাইদুল রহমান বাচ্চুর ছেলে এবং কুমারখালী এমএন পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র।আসামী সুমন এলংগীর আসিফ ইকবালের ছেলে এবং শেরকান্দির রেজাউল হকের ছেলে নাইম হোসেন।

এবিষয়ে নিহতের মা নিলা তারা বলেন, আমার ছেলেকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে তিন বন্ধু সুমন,নাইম ও বাঁধন মিলে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।হত্যার ঘটনা চাপা দিতে মৃগী রোগে আমার ছেলে মারা গেছে বলে মিথ্যা রটনা করছে।তিনি আরো বলেন,আমার ছেলের কোনোদিন মৃগী রোগ ছিলোনা।

কুমারখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান বলেন, চারবন্ধু মিলে আড্ডা দেওয়ার সময় তানভিরের রহস্যজনক মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়।তবে লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।ময়না তদন্তের রিপোর্ট আসলেই প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।তিনি আরো বলেন,এঘটনায় নিহতের মা একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন এবং তিন আসামীর মধ্যে দুইজনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপার্দ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে,গত বুধবার রাতে নিহত তানভির, এলংগীর আসিফ ইকবালের ছেলে বাঁধন (১৭) ও তারেক হোসেনের ছেলে সুমন আলী (১৬) এবং শেরকান্দির রেজাউল হকের ছেলে নাইম হোসেন (১৬) চার বন্ধু মিলে জেএন স্কুল সংলগ্ন আব্দুস সাত্তার মোড়ে আড্ডায় মেতে উঠেছিল।এসময় নিহত তানভির উত্তেজিত হয়ে পড়লে মৃগী রোগের মত সারা শরীর কাঁপতে কাঁপতে রাস্তার লুটিয়ে পড়ে।এসময় অপর তিন বন্ধু তাকে উদ্ধার করে কুমারখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সর্বশেষ নিউজ