২৫, অক্টোবর, ২০২০, রোববার

সিরাজদিখানে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ

সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ
মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখান উপজেলার ইছাপুরা ইউনিয়নের রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মাওলার বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাছে এমনই নানা অনিয়মের অভিযোগ করেছেন বিদ্যালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক । সভাপতি ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের মধ্যে রয়েছে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটি সভাপতি এস এম সোহরাব হোসেন মনগড়া মনোনীত প্রার্থী দিয়ে একের পর এক শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া। প্রধান শিক্ষকের সামান্য ভুলের কারণে বিদ্যালয়ে ছাত্র পেটানো, সহকারী শিক্ষকের সাথে বিদ্যালয়ের আয়-ব্যায়ের ভাউচার হিসাব নিয়ে গন্ডগোল, গত কয়েক বছর পূর্বে এস. এস. সি. পরিক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের কারনে হাজত বাস করা। ব্যাংকের জমা টাকার আয়-ব্যায়ের প্রতিবেদন না দেওয়া।
এ ব্যাপারে রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক বি.এম. হানিফ বলেন, আমি এ বিষয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান বরাবর গত বুধবার লিখিত অভিযোগ করেছি। গত ১৮ মার্চ ২০১৯ ইং আমাকে রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। আমার পূর্বে গোলাম মাওলাকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। তাকে ১৪টি অনিয়মের জন্য ও টাকা আত্মসাতের জন্য কমিটির সাময়িক বরখাস্থও করার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু সভাপতি এস এম সোহরাব হোসেন তার অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য তাকে বরখাস্থ না করে তার পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। গোলাম মাওলা কয়েক বছর পূর্বে এস এস সি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস করার কারনে জেল হাজত বাস করেন। কমিটির সভাপতি গোলাম মাওলার থেকে উৎকোচ নিয়ে গোলাম মাওলার সব অপরাধ জেনেও আমাকে মানসিক চাপ প্রয়োগ করে অন্যেও হাতে দরখাস্থ লিখিয়ে সেই লিখিত অব্যাহতির দরখাস্ত আমাকে সই করিয়ে পদ থেকে সরিয়ে গোলাম মাওলাকেই আবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক করেছেন। এ ছাড়াও নানান অভিযোগের পরও সভাপতির সহায়তায় তিনি পার পাওয়ায় হতাশ শিক্ষক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকবৃন্দ।
এ ব্যাপারে রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি এস এম সোহরাব হোসেন বলেন, সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বি.এম. হানিফ মিয়া তার পদে খেকে দায়িত্ব পালনে অপারগতা শিকার করে লিখিত অব্যহতি দিলে পরিচালনা কমিটি শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের পরিপত্র অনুযায়ী রেজুলেশন করে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিয়োগ করেন। স্কুল ফান্ডের ২,৩৩,৮৬৪টাকা(দুই লাখ তেত্রিশ হাজার আটশত চৌষট্টি) ব্যাংকে আছে।
ইউএনর নিকট অভিযোগের অনুলিপি দেওয়ায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী আব্দুল ওয়াহিদ মোঃ সালেহ বলেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিয়োগের বিষয়টি কমিটির। সাবেক রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক বি.এম. হানিফ মিয়া আমাদের নিকট লিখত বা মৌখিক কোন অভিযোগ করেননি। আগামী কাল শুক্রবার রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
সিরাজদিখান উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশফিকুন নাহার জানান, রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বিষয়ে অভিযোগের একটি অনুলিপি পত্র পেয়েছি। এ বিষয়ে জেলা থেকে কোন দায়িত্ব দিলে বিষয়টি দেখব।
সিরাজদিখান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী মহিউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক স্কুলের টাকা পরে ব্যাংকে জমা দিয়ে দূষি সাব্যস্থ হয়েছেন তাকে আবার পুনরায় স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া ঠিক হয়নি। এ বিষয়ে জানতে রাজদিয়া আঃ জাব্বার পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গোলাম মাওলার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,আমি কমিটির কথায় টাকা নিজের কাছে রেখেছিলাম সেই টাকা ব্যাংক একাউন্টে রেখেদিয়েছি। আগামী ৭ আগষ্ঠ প্রধান শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে সেখানে আমি প্রধান শিক্ষকের জন্য পরীক্ষা দেব না।

সর্বশেষ নিউজ